kalerkantho

হাইওয়ে পুলিশের হয়রানির প্রতিবাদে যশোর-বেনাপোল সড়ক অবরোধ

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি   

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাইওয়ে পুলিশের হয়রানির প্রতিবাদে যশোর-বেনাপোল সড়ক অবরোধ

ছবি: কালের কণ্ঠ

যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের নাভারন পুরাতন বাজারে ব্যাটারিচালিত ইঞ্জিনভ্যান চালকরা হাইওয়ে পুলিশের হয়রানির প্রতিবাদ জানিয়ে ৩ ঘণ্টা সড়ক অবরোধ করে। এতে করে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে ভোগান্তির মধ্যে পড়ে বেনাপোল বন্দরের শত শত আমদানি-রপ্তানি পণ্য বোঝাই ট্রাকসহ সব ধরনের যানবাহন। সোমবার বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত যশোর-বেনাপোল মহাসড়ক অবরোধ করে নাভারন হাইওয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন ভ্যান শ্রমিকরা।

অন্যদিকে হাইওয়ে পুলিশের বক্তব্য এসব অবৈধ যানবাহন মহাসড়কে চলাচল করতে না দেওয়ায় ও মামলা এবং যানবাহন আটক করায় তারা অবরোধ করে।
  
ভ্যান চালকরা জানায়, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে যশোর-বেনাপোল মহাসড়কে লাগাতার ব্যাটারিচালিত ইঞ্জিনভ্যান আটকে অভিযানে নামে নাভারন হাইওয়ে পুলিশ। গরিব ভ্যান শ্রমিকদের ভ্যান জব্দ করে ৫০০ টাকা করে নিয়ে মামলার কাগজ ধরিয়ে দিচ্ছে হাইওয়ে পুলিশ। মামলা মিটিয়ে গরিব শ্রমিকরা তাদের একমাত্র অবলম্বন ভ্যান গাড়িটি ছাড়িয়ে আনার কয়েক দিন না যেতেই আবারো তাদের ভ্যান গাড়িটিকে জব্দ করে মামলা দেওয়া হচ্ছে। এভাবে একের পর এক গরিব ভ্যান শ্রমিকদের আর্থিক ও মানসিকভাবে হয়রানি করার কারণে এলাকার সকল ভ্যান শ্রমিকরা একজোট হয়ে ব্যাটারিচালিত ইঞ্জিনভ্যান নিয়ে সড়কে নেমে পড়েন এবং হাইওয়ে ফাঁড়ি পুলিশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে মহাসড়ক অবরোধ করেন। 

পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য মুজিবুর রহমান ও তরিকুল ইসলাম মিলনের মধ্যস্থতায় সন্ধ্যা ৬টার সময় আটককৃত ৫টি ব্যাটারিচালিত ইঞ্জিনভ্যান ছেড়ে দেওয়া ও পরবর্তীতে ভ্যান চালকদের আর অযথা হয়রানি না করার আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয় ভ্যান শ্রমিকরা। 

এ ব্যাপারে নাভারন হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পলিটন মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ৩ ঘণ্টা নয় মাত্র এক ঘণ্টা ভ্যান শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে। সরকারি নির্দেশে সড়ক মহাসড়কে এসব ইজ্ঞিনচালিত যানবাহন চলাচল করতে না দেওয়া ও মামলা দেয়ায় এবং এ ছাড়াও আগামীতে তাদের ফ্রি স্টাইলে সড়কে চলাচল করতে দিতে হবে এসব দাবিতে তারা সড়ক অবরোধ করে। পরে ভ্যান শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে অবরোধ প্রত্যাহার করে নিলে যান চলাচল শুরু হয়।

মন্তব্য