kalerkantho

দুইবারের ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ এবার হলেন চেয়ারম্যান

জীবননগর (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি    

২৫ মার্চ, ২০১৯ ০৫:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুইবারের ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ এবার হলেন চেয়ারম্যান

ছবি: কালের কণ্ঠ

জীবননগর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী হাজী হাফিজুর রহমান বিজয়ী হয়েছেন। তিনি পর পর দুইবারের নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান। তিনি কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে ৩২ হাজার ৫৭৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের আর এক বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোর্তুজা। মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ১৮ হাজার ২৬ ভোট।

রবিবার অনুষ্ঠিত পঞ্চম উপজেলা পরিষদ সাধারণ নির্বাচনে জীবননগর উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটাররা ভোট প্রদান করেন। উপজেলায় মোট ভোটার ছিল ১ লাখ ৩৫ হাজার ১৫৫। মোট ভোট পোল হয়েছে ৪৪.০৫%। 

নির্বাচনে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুস সালাম ইশা। তিনি তালা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩১ হাজার ৭৩৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. সাইদুর রহমান শাহিনুর মাস্টার চশমা প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ১৮ হাজার ২৭৭ ভোট। 
অপরদিকে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা মহিলা লীগের সভানেত্রী আয়েশা সুলতানা লাকি কলস প্রতীকে ৩৭ হাজার ৮৮৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা সম্পাদক রেণুকা আক্তার রিতা হাঁস প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ১৮ হাজার ৬২৬ ভোট।

নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল দলীয় কোন্দলে শেষ মুহূর্তে সরে দাঁড়ান। উপজেলাব্যাপী নৌকা সমর্থকদের মাঝে উৎসাহ-উদ্দীপনার ঘাটতি দেখা দিলেও নেতাকর্মীরা বিদ্রোহী প্রার্থীদের সমর্থন করে ভোটের মাঠ চাঙ্গা রাখে।

জীবননগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত উপজেলা পরিষদের মোট ভোট কেন্দ্র ছিল ৫৭টি। দিনভর চোখে পড়ার মতো ভোটার উপস্থিতি না থাকলেও সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় ছিল। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা ছিল চোখে পড়ার মতো। ভোট গণনা শেষে উপজেলা পরিষদের ভিডিও কনফারেন্স হলরুমে সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিরাজুল ইসলাম বেসরকারি এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

মন্তব্য