kalerkantho

নন্দীগ্রামে ব্যবহারিক পরীক্ষায় টাকা আদায়ের অভিযোগ

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৪ মার্চ, ২০১৯ ১৬:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নন্দীগ্রামে ব্যবহারিক পরীক্ষায় টাকা আদায়ের অভিযোগ

বগুড়ার নন্দীগ্রামে সরকারি মহিলা ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি ও ডিগ্রি (পাস) ব্যবহারিক পরীক্ষায় ছাত্রীদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার শিক্ষার্থীরা ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য অতিরিক্ত টাকা উত্তোলন বন্ধ করতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন।

শিক্ষার্থীরা জানান, ফেল করার ভয় দেখিয়ে, বেশি নম্বর দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে অথবা মিষ্টি খাওয়ার কথা বলে শিক্ষকেরা টাকা আদায় করছেন। ভূগোল বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য এইচএসসিতে ৬০০ ও ডিগ্রিতে (স্নাতক) ১২০০ টাকা করে ছাত্রীদের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে। এই বিষয়টি নিয়ে গরিব-মেধাবী ছাত্রীদের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে।

ভূগোল বিষয়ের ছাত্রী লিপি খাতুন, তন্বী খাতুন, মরিয়ম খাতুন বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ভূগোল বিষয়ের স্যার ব্যবহারিক পরীক্ষায় বেশি নম্বর দেওয়ার জন্য এইচএসসি ব্যবহারিক অতিরিক্ত ছয় শ টাকা ও ডিগ্রি (স্নাতক) ১২ শ টাকা করে বেশকিছু ছাত্রীদের কাছ থেকে নিয়েছেন ও আমাদের কাছে দাবি করছেন।

সরকারি মহিলা ডিগ্রি কলেজের ভূগোল বিষয়ের প্রভাষক ইনছান আলী বাবলু জানান, আমার কাছ থেকে যেসব ছাত্রী নোট বই নিয়েছে শুধু তাদের নিকট থেকে টাকা নেওয়া হয়েছে। অতিরিক্ত কোনো টাকা নিইনি।

নন্দীগ্রাম সরকারি মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ওসমান গণি সরকার বলেন, বিষয়টি শুনেছি। তবে কোনো ছাত্রী আমার কাছে অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসা. শারমিন আখতার বলেন, ব্যবহারিক পরীক্ষায় অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার বিষয়ে ওই কলেজের ছাত্রীরা অভিযোগ করেছে। বিষয়টি তদন্ত করে সত্যতা পাওয়া গেলে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য