kalerkantho

চাঁদপুরে ভোট আছে, ভোট নেই

চাঁদপুর প্রতিনিধি    

২২ মার্চ, ২০১৯ ২০:৫৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চাঁদপুরে ভোট আছে, ভোট নেই

পঞ্চম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চাঁদপুরের সাত উপজেলায় আগামী রবিবার (২৪ মার্চ)  ভোটগ্রহণের কথা রয়েছে। এর মধ্যে তিন উপজেলায় ইতিমধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় চেয়ারম্যান এবং দুই উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান- মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার পথে।

এমন পরিস্থিতিতে এখন চার উপজেলায় ভোটযুদ্ধ হবে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে। এদিকে, শুক্রবার মধ্যরাত থেকে প্রার্থীদের প্রচারণা শেষ হচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নৌকার প্রার্থী জাহিদুল ইসলাম রোমানের সঙ্গে লড়বেন স্বতন্ত্র প্রার্থী তোফায়েল আহমেদ ভূঁইয়া। এই ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের তৃণমূল নেতাকর্মীদের নিয়ে শক্ত অবস্থানে রয়েছেন নৌকার প্রার্থী। তবে পাল্লা দেওয়ার চেষ্টায় আছেন ঢাকা মহানগর যুবলীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ ভূঁইয়া। এখানে ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাত এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয়জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। 

চাঁদপুর সদরে নৌকার প্রার্থী নাজিম দেওয়ানের সঙ্গে লড়ছেন জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মিজানুর রহমান ভূঁইয়া কালু। ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ ও মহিলা দুইজন করে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আছেন। এই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে।

কচুয়া উপজেলায় চার চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে মাঠে আছেন তিনজন। এঁদের মধ্যে নৌকার শাহজাহান শিশির, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী জিয়ারউর রহমান হাতেম এবং ফয়েজ আহমেদ স্বপন। এই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে পুরুষ ও মহিলা দুইজন করে হলেও চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন একটু কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে এমন আভাসই মিলেছে।

শাহরাস্তি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নৌকার ফরিদউদ্দিন চৌধুরী এবং আনারস প্রতীকের প্রকৌশলী মকবুল হোসেন। এই উপজেলায় ভোটের হিসেবে শেষপর্যন্ত কোন দিকে মোড় নেয়, তা দেখার অপেক্ষায় স্থানীয়রা। কারণ, নৌকার প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাতে অনিহা জানিয়ে আওয়ামী লীগ ও এর  সহযোগী সংগঠনগুলো দ্বিধাবিভক্ত। এ কারণে সুবিধা করে নিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রকৌশলী মকবুল হোসেন।

এদিকে, মতলব উত্তরে চেয়ারম্যান পদে এম এ কুদ্দুস, ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোতাহার হোসেন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে শাহীনা আক্তার প্রতিদ্বন্দ্বী  ছাড়াই মাঠে আছেন। একই অবস্থা মতলব দক্ষিণেও। চেয়ারম্যান পদে এ এইচ এম গিয়াসউদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে মতিন সুজন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ফেরদৌসী বেগম একক প্রার্থী। ফলে মতলব উত্তরের মতো এই উপজেলায় শেষপর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তাঁরা নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

সূত্র জানায়, এই দুই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ ও মহিলা একাধিক ছিলেন। কিন্তু মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করেই রহস্যজনক কারণে তাঁরা বসে যান।

অন্যদিকে, হাজীগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে গাজী মাইনউদ্দিন ভাইস চেয়ারম্যান পদে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদেও একক প্রার্থী। তবে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থী রয়েছেন। সুতরাং এখানে শুধুমাত্র মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহণ হবে।

নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শান্তিপূর্ণ করতে চাঁদপুর পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে ইতিমধ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মাঠে নেমেছে। জেলার প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ উপজেলায় প্রায় ২৭০০ পুলিশ সদস্যের সঙ্গে আনসার সদস্যরাও নিয়োজিত থাকবে। প্রতিটি কেন্দ্রে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ছাড়া র‌্যাব ও বিজিবির সমন্বয়ে স্ট্রাইকিং ফোর্স এবং বিচারিক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হবে।    

মন্তব্য