kalerkantho

বিশ্বনাথে জামানত হারালেন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৯ জন

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি   

২০ মার্চ, ২০১৯ ০৫:১৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিশ্বনাথে জামানত হারালেন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৯ জন

ছবি: কালের কণ্ঠ

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেয়া ১৭ জন প্রার্থীর মধ্যে ৯ জন প্রার্থীই তাদের জামানত হারিয়েছেন। এদের মধ্যে রয়েছেন একজন চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ছয়জন ভাইস-চেয়ারম্যান এবং দুই মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান। 

জানা যায়, নির্বাচন কমিশনের আইনানুযায়ী সর্বমোট প্রদত্ত ভোটের ৮ ভাগের ১ ভাগ না পেলে ওই প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত হয়। সে মোতাবেক ৯ জন প্রার্থী তাদের জামানত বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। 

গত সোমবার অনুষ্ঠিত ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিশ্বনাথ উপজেলার মোট ১ লাখ ৫০ হাজার ৬৫৯ জন ভোটারের মধ্যে ৬১ হাজার ১৯ জন ভোটার নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। সে হিসেবে জামানত রক্ষার জন্য একেকজন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে পেতে হবে ৭ হাজার ৬২৭ ভোট। যে কারণে ৩ চেয়ারম্যান প্রার্থী, ২ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী, ৩ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ মোট ৮ জন প্রার্থী নিজের জামানত রক্ষা করলেও জামানত রক্ষায় ব্যর্থ হয়েছেন ৯ জন প্রার্থী।

জামানত হারালেন যারা তারা হলেন- চেয়ারম্যান পদে মিনার প্রতীকে ইসলামী ঐক্য জোট মনোনীত প্রার্থী কাজী মাওলানা রুহুল আমীন’র প্রাপ্ত ভোট ৫৫৪টি, ভাইস চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী চশমা প্রতীকে জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক (সদ্য বহিষ্কৃত) আবদুর রহমান খালেদ’র প্রাপ্ত ভোট ৬ হাজার ৭০৫টি, উড়োজাহাজ প্রতীকে উপজেলা যুবদল নেতা (সদ্য বহিষ্কৃত) জুবেল আহমদের প্রাপ্ত ভোট ৫ হাজার ৪৫৬টি, টিউবওয়েল প্রতীকে বিশ্বনাথ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলামের প্রাপ্ত ভোট ৩ হাজার ৮৮২টি, মাইক প্রতীকে বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সদস্য (সদ্য বহিষ্কৃত) আহমেদ-নূর উদ্দিনের প্রাপ্ত ভোট ৩ হাজার ১৪৯টি, টিয়া পাখি প্রতীকে মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক (সদ্য বহিষ্কুত) আশরাফ উদ্দিন রুবেলের প্রাপ্ত ভোট ১ হাজার ২৮৮টি ভোট, গ্যাস সিলিন্ডার প্রতীকে আওয়ামী লীগ নেতা নোয়াব আলী’র প্রাপ্ত ভোট ৩৭৫টি, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীকে বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা মহিলা দলের সহ সভাপতি (সদ্য বহিষ্কৃত) বেগম স্বপ্না শাহীন’ প্রাপ্ত ভোট ৬ হাজার ৩৫টি, ভোট, পদ্মফুল প্রতীকে নারী নেত্রী নেহারা বেগমের প্রাপ্ত ভোট ১ হাজার ৯৩৩টি ভোট।

মন্তব্য