kalerkantho

বাল্যবিয়ের অনুষ্ঠান থেকে বাবা ও বরের ৬ মাস কারাদণ্ড

চরফ্যাশনে আবু কাজীর জরিমানা

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি   

২০ মার্চ, ২০১৯ ০২:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চরফ্যাশনে আবু কাজীর জরিমানা

ভোলার চরফ্যাশনের আসলামপুর বাল্যবিয়ের প্রস্তুতিকালে কনের বাবা ও বরকে আটক করে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড, কাজীকে (আবু কাজী) ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার সন্ধ্যায় আসলামপুর সেরাজল হক মুন্সি বাড়ি দরজা জামে মসজিদ থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃত ও দণ্ডিতরা হলেন, ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার ছাগলা গ্রামের মৃত মোস্তফার ছেলে রাকিব (২১) এবং চরফ্যাশন থানার আছলামপুর ইউনিয়নের খোঁদেজাবাগ গ্রামের মৃত দীন মোহাম্মদের ছেলে মো. রুহুল আমিন (৫৫)।

একই সঙ্গে অভিযুক্ত উমরপুর গাফুরিয়া ফাজিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ আবুল কাশেম ওরফে আবু কাজীকে ১৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রুহুল আমিন এই দণ্ডাদেশ দেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন জানান, বাল্যবিয়ে হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আছলামপুর ইউনিয়নের সুলতান মিয়ার বাজার সংলগ্ন একটি মসজিদ থেকে বাল্যবিয়ের প্রস্তুতিকালে তাদের আটক করে এ দণ্ডাদেশ দেয়া হয়েছে।

চরফ্যাশন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ম. এনামুল হক জানান, কনের বাবা এবং বরকে মঙ্গলবার সকালে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, উক্ত আবু কাজীর বিরুদ্ধে একাধিকবার এলাকায় বাল্যবিয়ে নিবন্ধনের অভিযোগ রয়েছে। সে উমরপুর গাফুরিয়া ফাজিল মাদরাসার ভাইস প্রিন্সিপাল। এলাকায় বাল্যবিয়ের কাজি হিসাবে পরিচিত। দু’চরিত্রার জন্য স্থানীয়দের হাতে একাধিকবার এই কাজী লাঞ্ছিত হলেও সে অহরহ বাল্যবিয়ে পড়াইয়া যাচ্ছে।

স্থানীরা জানান, বিশেষ করে আবু কাজীকে জেল দিলে এলাকা থেকে বাল্যবিয়ে বন্ধ হয়ে যাবে। দুই নাম্বারি জন্মসনদকারীদেরকে আটক করলে সম্পূর্ণরূপে বাল্যবিয়ে বন্ধ হয়ে যাবে।

মন্তব্য