kalerkantho

জগন্নাথপুরে ‘বাধা’ দেওয়ায় হাওর সড়কের কাজ বন্ধ

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৮ মার্চ, ২০১৯ ২০:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জগন্নাথপুরে ‘বাধা’ দেওয়ায় হাওর সড়কের কাজ বন্ধ

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে হাওরের যাতায়াতের সড়কের কাজ বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ সোমবার জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলমের নিকট গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে লিখিতভাবে এরকম অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

স্থানীয় লোকজন ও অভিযোগপত্র থেকে জানা যায়, উপজেলার মীরপুর ইউনিয়নের আটঘর এলাকা থেকে জামাইকাটা হাওরে যাতায়াতের জন্য সম্প্রতিবার স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অর্থায়নে দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমে প্রায় ৪৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৫০০ মিটার সড়ক পাকাকরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। ইতোমধ্যে ওই সড়কের পাক্কলন তৈরি করে কাজ শুরু করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স রোপন।

কিন্তু সরকারি এ ভূমিতে মালিকানা জায়গা দাবি করে আটঘর গ্রামের সামছুল রহমান খান কাজে বাধা প্রদান করলে সড়কের কাজটি আটকে যায়। এদিকে হাওরের বোরো ফসল গোলায় তুলে আনতে যাতায়াতে মারাত্মক বিঘ্নিত হওয়ায় আশঙ্কায় বৃহত্তর আটঘর গ্রামবাসী পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগপত্রটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহকারী ফয়সল চৌধুরী সাক্ষরের মাধ্যমে রিসিভ করেন।

এ বিষয় জানতে আটঘর গ্রামের সামছুল রহমান খানের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সরকারি জায়গার পাশে আমার মালিকা ভূমি রয়েছে। জায়গাটি সঠিকভাবে চিহিৃত করে কাজ করার জন্য আমরা স্থানীয় প্রকৌশল অধিদপ্তরেরকে অবহিত করলে তারা কাজ বন্ধ করে দেন।

এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর উপজেলা প্রকৌশলী গোলাম সারোয়ার বলেন, হাওরে যাতায়াতের সুবিধার জন্য আমাদের অধিদপ্তর থেকে ৫০০ মিটার সড়কের পাকাকরণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। ওই সড়ক এলাকায় স্থানীয় একজন অভিযোগ করে এখানে তার মালিকা জায়গা রয়েছে। এজন্য কাজ বন্ধ হয়ে যায়। বিষয়টি আমরা দ্রুত নিস্পতির জন্য প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছি। 

জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম বলেন, আমি সিলেট অঞ্চলে নির্বাচনে দায়িত্ব রয়েছি। শুনেছি আমার দপ্তরে একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। 

মন্তব্য