kalerkantho


নকলায় অগ্নিকাণ্ডে কোটি টাকার কৃষিপণ্য ভস্মীভূত

শেরপুর প্রতিনিধি   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০২:১৯



নকলায় অগ্নিকাণ্ডে কোটি টাকার কৃষিপণ্য ভস্মীভূত

ছবি : কালের কণ্ঠ

শেরপুরের নকলা উপজেলার চন্দ্রকোনা ইউপি বাজারে কৃষিপণ্যের গুদামে আগুন লেগে কোটি টাকার বেশি মূল্যের মালামাল ভস্মীভূত হয়েছে। শুক্রবার ভোরে নকলার চন্দ্রকোনা বাজারের পাট, সরিষা, ধান, ভুট্টা, কালাইসহ বিভিন্ন কৃষি পণ্যের গুদামে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে শেরপুর ও নালিতাবাড়ি উপজেলার ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

এ ঘটনায় একটি পাটের, ৩টি ধানের, ২টি সরিষার ও একটি কালাই ও ভুট্টার গুদামের মালামাল পুড়ে যায়। এতে কমপক্ষে ৩৫ লাখ টাকার পাট, ৬০ লাখ টাকার সরিষা, ২০ লাখ টাকার কালাই ও অর্ধ লাখ টাকার ধান ও ভ‚ট্টা পুড়ে গেছে। নকলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুর রহমান ও আওয়ামী লীগের নেতারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শুক্রবার ফজর নামাজের সময় গুদান এলাকার আকাশে ধূয়া দেখে অনেকে গুদামের দিকে এগিয়ে গিয়ে গুদাম ঘরের ভিতরে আগুন জ্বলতে দেখেন। মুহূর্তেই আগুন পাশাপাশি ৪টি বিশালাকৃতি ঘরের অন্তত ৭টি গুদামে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। গুদামের মালিকদের সঙ্গে কথা জানা গেছে, এই অগ্নিকাণ্ডে অন্তত কোটি টাকার বেশি মূল্যের মালামাল পুড়ে ছাই হয়েছে। এতে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন পাট ও ধান গুদামের মালিক শহিদুল মুন্সি। 
তিনি জানান, তার ৪০/৪৫ লাখ টাকার মালামাল ভস্মীভূত হয়েছে। তাছাড়া ধান ও সরিষা গুদামের মালিক রিপন মিয়া ও শাহজাহান মিয়া এবং সরিষা, কালাই ও ভ‚ট্টা গুদামের মালিক শফিকুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সাজু সাঈদ সিদ্দিকী বলেন, ফজর নামাজের পরে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আগুন লাগার বিষয়টি জেনে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করি এবং ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে খবর দেই। কিছুক্ষণের মধ্যেই ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে চলে আসেন। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের ত্বরিৎ আসার কারণে আরো কয়েক কোটি টাকার সম্পদ রক্ষা করা সম্ভব হয়।

শেরপুর ফায়ার সার্ভিসে স্টেশন অফিসার সুবল চন্দ্র দেবনাথ জানান, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মী ও স্থানীয়দের সহায়তায় প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়। আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কের  নির্দিষ্ট করে কিছু বলতে না পারলেও তিনি জানান, বৈদ্যুতিক শট সার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে। 



মন্তব্য