kalerkantho


জমি নিজের দাবি করে পৌরসভায় লিখিত অভিযোগ

চৌগাছায় 'জেলা পরিষদের' জমিতে মার্কেট নির্মাণ স্থগিত

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি    

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১২:৫৯



চৌগাছায় 'জেলা পরিষদের' জমিতে মার্কেট নির্মাণ স্থগিত

যশোরের চৌগাছায় জেলা পরিষদের জমিতে মার্কেটের নির্মাণকাজ স্থগিত করা হয়েছে। মোস্তাফিজুর রহমান নামের এক ব্যক্তি জমিটি নিজের দাবি করে পৌরসভায় লিখিত অভিযোগ করেন। তারই প্রেক্ষিতে পৌর কর্তৃপক্ষ এ নির্মাণকাজ স্থগিত করেছে। তবে এ বিষয়ে আগামীকাল রবিবার সুষ্ঠু সমাধান হবে বলেও পৌরসভার পক্ষ থেকে জানানো হয়।

সূত্র জানায়, চৌগাছা-মহেশপুর রোড সংলগ্ন মৃধাপাড়া মহিলা কলেজের সামনে জেলা পরিষদের জমি দাবি করে কৃর্তপক্ষ সেখানে মার্কেট নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়। সেই লক্ষ্যে সম্প্রতি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুলের নেতৃত্বে সার্ভেয়ারের মাধ্যমে মাপজোক করা হয়। একইসাথে স্থান নির্ধারণ করা হয়। পরবর্তিতে সেই স্থান দখলমুক্ত করে মার্কেট নির্মাণের কাজ শুরুও হয়। 
 
কিন্তু এতে বাধ সাধে একটি মহল। মৃধাপাড়া মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ কলেজের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হবে মর্মে কাজ বন্ধের জন্য বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেন। কিন্তু এতে তিনি সফল না হওয়ায় তার বড়ভাই মোস্তাফিজুর রহমান চৌগাছা পৌরসভায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগে মার্কেট নির্মাণাধীন স্থানটি নিজের জমি বলে দাবি করা হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে পৌর কর্তৃপক্ষ গত বৃহস্পতিবার নির্মাণকাজ স্থগিত করে। হঠাৎ করে কাজ বন্ধের খবর ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। 

স্থানীয়রা জানান, মহিলা কলেজের পাশে ও নতুন সেতুর পাশ দিয়ে অসংখ্য জেলা পরিষদের জমি আছে। এসব জমির বেশির ভাগ মৃধাপাড়ার বাসিন্দারা নানা কৌশলে নিজেদের কবজায় রেখেছেন। বর্তমান মার্কেট নির্মাণের জমিও অনুরুপভাবে মৃধাপাড়ার বাসিন্দারা দখল করে রেখেছেন বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেন। 

এ বিষয়ে পৌরসভায় অভিযোগকারী মোস্তাফিজুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যে জমি জেলা পরিষদ নিজেদের দাবি করছেন এটি সঠিক নয়। সমুদয় জমির কাগজপত্র আমাদের নামে। বৈধ কাগজপত্র থাকায় আমরা এই জমিতে কাজ না করার জন্য পৌরসভাকে অবহিত করেছি। জেলা পরিষদের জায়গায় মার্কেট নির্মাণ হলে আমাদের আপত্তি নেই। তবে আমাদের জমিতে হওয়াটা দুঃখজনক।

এ বিষয়ে পৌরসভার মেয়র নূর উদ্দিন আল মামুন হিমেলের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জেলা পরিষদের সাথে পৌরসভার কোনো দ্বন্দ্ব বা মতপার্থক্য নেই। মূলত জেলা পরিষদ যে জমিতে মার্কেট নির্মাণ করছে সেই জমি এক ব্যক্তি নিজের দাবি করে পৌরসভায় লিখিত আবেদন করেছেন। আবেদনের সাথে জমির কাগজপত্র জমা দিয়েছেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে আমরা সাময়িকভাবে কাজ স্থগিত করেছি। তবে আগামীকাল রবিবার জেলা পরিষদের নেতবৃন্দ, পৌর কর্তৃপক্ষ ও জমি দাবিদাররা এক জায়গায় বসে কাগজপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে মাপজোক করা হবে। আমার বিশ্বাস এদিন বিষয়টির একটি সুষ্ঠু সামাধান হবে। 

এ বিষয়ে জেলা পরিষদ সদস্য দেওয়ান তৌহিদুর রহমান জানান, একটি অভিযোগের ভিত্তিতে পৌর কৃর্তপক্ষ নির্মাণাধীন কাজ সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে। বিষয়টি জেলা পরিষদের নজরে এসেছে। জেলা পরিষদ কারো প্রতিপক্ষ নয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় জেলা পরিষদ আন্তরিক। জনগণের ক্ষতি হয় এমন কিছু হবে না। যেহেতু ওই জমি একজন নিজের বলে দাবি করেছেন, তাই বিষয়টি বিবেচনায় রেখে আমরা আগামীকাল রবিবার পুনরায় মাপজোক করবো। এতে সুষ্ঠু সমাধান হবে আশা রাখি। তবে জেলা পরিষদের জমি হলে কেউ বাধা দেয়ার এখতিয়ার রাখে না।



মন্তব্য