kalerkantho


ফুলপুরে বিএনপির ১৩ শতাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৮:০২



ফুলপুরে বিএনপির ১৩ শতাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

ফুলপুরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে গত মঙ্গলবার ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় ময়মনসিংহ ফুলপুর-তারাকান্দা আসনের মহাজোট প্রার্থী এমপি শরীফ আহমদের পক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেন উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

বুধবার বিকাল ৩ টায় দলীয় কার্যালয়ের অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহ কতুব চৌধুরী বলেন, সারাদেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনী প্রচারণা চলছে, অত্যন্ত আনন্দমুখর পরিবেশে এ নির্বাচন হবে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন। ফুলপুর তারাকান্দায় একই অবস্থা। পরিতাপের  বিষয় মঙ্গলবার বিকালে আমাদের মিছিল মিটিং চলাকালীন একদল দুর্বৃত্ত বাঁশের লাঠির উপরে ধানের শীষসহ থানা রোড হতে আসা কয়েকটি মিছিল নিয়ে  আমাদের দলীয় মিছিল মিটিং চলাকালীন লোকজনের উপর হামলা করে, যা ফুলপুরের রাজনীতির ইতিহাসে ঘটেনি।

তিনি আরো বলেন, এ হামলায় ১৫/২০টি গাড়ী ভাংচুর করে ও ফুলপুর বাসস্ট্যান্ড ব্যবসায়ীদের ও আগত লোকজনের মারাত্মক ক্ষতি হয়। আমাদের দলের  ১০/১২ জন কর্মী আহত হন। তাদেরকে ফুলপুর  উপজেলা সরকারি হাসপাতাল বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হচ্ছে। আহতরা হলেন বালিয়া ইউনিয়নের মিলন (৩৫) সোহরোয়ার (৩৭) সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা সবুজ (৩৭) চানু মেম্বার (৪৬) আকিকুল, বাবুল, ফারুক, মাসুদসহ দলের বিভিন্ন নেতাকর্মী।

সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আলহাজ্ব আব্দুল হেকিম সরকার বলেন, মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শক্তি আমাদের উপর হামলা করছে। এদের বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়াতে হবে।

মামলা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান জানান, মঙ্গলবারের ঘটনায় প্রায় ৩০০ ব্যক্তিকে আসামী করে ফুলপুর থানায় শ্রমীক লীগ নেতা এটি এম নোমান বাদী হয়ে মামলা করেছেন। আশা করি এদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, সাবেক পৌর মেয়র শাজাহান, সাবেক ভিপি আতাউল করিম রাসেল, সাবেক চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, রিয়াজ উদ্দিন তালুকদারসহ প্রমুখ।

অপরদিকে ফুলপুর থানা সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবারের ঘটনায় বিএনপির ২৯৪ জনের নামে ও অজ্ঞাত ১৩ শ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ৭ জনকে পুলিশ আটক করেছে। বাকি আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে বলে জানান, ফুলপুর থানার অফিসার-ইনচার্জ বদরুল আলম খান।



মন্তব্য