kalerkantho


জুড়ীতে চিকিৎসকদের অবহেলায় মা-শিশু মৃত্যুর অভিযোগ

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:৩০



জুড়ীতে চিকিৎসকদের অবহেলায় মা-শিশু মৃত্যুর অভিযোগ

ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে উঠা ক্লিনিকে এবার প্রাণ গেলো মা ও নবজাতক শিশুর। বৃহস্পতিবার দুপুরে মৌলভীবাজারের জুড়ীতে সেন্ট্রাল জেনারেল হাসপাতাল প্রাইভেট লিমিটেড কর্তৃপক্ষের অবহেলায় গর্ভবতী মা ও শিশু মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নিহত গর্ভবতী মা সুলতানা আক্তার এর স্বামী উপজেলার সাগরনাল ইউনিয়নের রানীমুরা গ্রামের বাসিন্দা রাজা মিয়া অভিযোগ করে বলেন, সুলতানার ডেলিভারী ব্যথা ও শ্বাসকষ্ট শুরু হলে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় সেন্ট্রাল হাসপাতালে নিয়ে আসি। হাসপাতালের ডাক্তার রোগী দেখে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বলেন রোগীর অবস্থা ভালো, নরমাল ডেলিভারি হবে। পরে রোগীকে ডেলিভারি রুমে নিয়ে অক্সিজেন লাগিয়ে রাখা হয়। সেই সাথে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ হাসপাতালের সাদা প্যাডে আমার স্বাক্ষর নেন। সেখানে কি লিখেছেন তা আমাকে দেখান নি।

পরে দুপুর ১২টায় ডাক্তার জানান মৃত বাচ্চা হয়েছে তবে রোগীর অবস্থা ভাল। কিছুক্ষণ পর বলেন রোগীর অবস্থা ভাল নয়। আপনারা সিলেট নিয়ে যান। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোনো অ্যাম্বুলেন্স দিতে পারেনি। দুপুর ১টায় বলেন রোগী মারা গেছে। অথচ এ সময়ের মধ্যে আমাদেরকে রোগী দেখতে দেওয়া হয়নি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় ইতিপূর্বে আরো একটি বাচ্চা মারা যায়।

এ বিষয়ে সেন্ট্রাল জেনারেল হাসপাতালের চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন শামীম ও কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সমির চন্দ্র পাল বলেন, রোগীর অবস্থা ভালো ছিল না। প্রচণ্ড শ্বাসকস্ট ছিল। দুপুর ১২টায় মৃত বাচ্চা নরমাল প্রসব হয়। এক ঘণ্টা পর রোগী মারা যায়। অবস্থা ভালো না হলে রোগী রাখেন কেন এবং সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিলেন কেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে নিরব থাকেন তারা।



মন্তব্য