kalerkantho


অদম্য শাহজাহানের জয় হোক

কুদ্দুস বিশ্বাস, কুড়িগ্রাম (আঞ্চলিক)   

২১ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৫



অদম্য শাহজাহানের জয় হোক

ছবি: কালের কণ্ঠ

দিনমজুর ঘরে জন্ম মো. শাহজাহানের। জন্মের পর থেকেই দু’হাত শক্তি নেই। ফলে হাত দিয়ে কোনো কাজ করতে পারে না সে। হাতে শক্তি না থাকলেও যে লেখাপড়া করা যায়, উত্তরপত্রে লেখা যায় সেই কঠিন কাজকে সহজ করে ফেলেন অদম্য শাহজাহান। চলতি প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় (পিএসসি) অংশ গ্রহণ করে সেই বাধাকে জয় করে পা দিয়ে উত্তরপত্রে লিখছে শাহজাহান। কুড়িগ্রামের রাজীবপুর উপজেলার নয়াচর বাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে অংশ নিচ্ছে সে।

গতকাল মঙ্গলবার নয়াচর বাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেল বেঞ্চের ওপর বসে পা দিয়ে উত্তরপত্র লিখছে শাহজাহান। পা দিয়ে লিখলেও তার লেখা অন্য দশটা পরীক্ষার্থীর চেয়েও অনেক সুন্দর। শিক্ষকরা জানিয়েছেন পরীক্ষাও ভালো দিচ্ছে সে। সব প্রশ্নের উত্তর সে সহজেই লিখতে পারছে। প্রতিবন্ধী হওয়ার কারণে নিয়ম অনুসারে একটু সময়ও বেশি পাচ্ছে। তার মনোবল আর ইচ্ছা শক্তি পরীক্ষা কেন্দ্রের সবাইকে হতবাগ করে দিয়েছে।

রাজীবপুরের দিয়ারারচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে শাহজাহান। স্কুলের প্রধান শিক্ষক সোলেমান হোসেন জানান, প্রতিবন্ধী হলেও শাহজাহান খুবই মেধাবি। তার স্বরণশক্তিও ভালো। লেখাপড়ায় তার প্রবল ইচ্ছা শক্তি আমাদের মুগ্ধ করেছে। আমরা স্কুল থেকে সব ধরণের সহযোগিতা করছি তাকে।

উপজেলার নয়াচর ফকিরপাড়া গ্রামের কাঠ মিস্ত্রি ফরিদুল ইসলামের পুত্র শাহজাহান। সংসারে ৫ ভাইয়ের মধ্যে সবার বড় রাশেদুল ইসলাম গাজীপুরের একটি কলেজে লেখাপড়া করছে। তার ছোট যথাক্রমে আশরাফুল ইসলাম (৭ম শ্রেণি), শাহজাহান (৫ম শ্রেণি), ইব্রাহিম আলী (৪র্থ শ্রেণি) ও ইউনুস আলী (২য় শ্রেণি)। 

ফরিদুল ইসলাম বলেন, ‘আমার দু’হাতের আয়ের ওপর চলে সংসার। ৫ ছেলের সবাইকে লেখাপড়া করাচ্ছি। যত কষ্ট হোক আমি সন্তানদের লেখাপড়া করাব। সন্তানদের মধ্যে শাহজাহানই প্রতিবন্ধী। জন্মের পর থেকে তার দু’হাতে বল নেই। চিকিৎসা করে অনেক টাকাও খরচ করেছি কিন্তু ভালো হয়নি।

পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিব বকুল মিয়া জানান, শাহজাহান নামের ওই ছেলেটি খুবই ভালো পরীক্ষা দিচ্ছে। পা দিয়ে লেখলে তার লেখা অনেক সুন্দর।



মন্তব্য