kalerkantho


সুনামগঞ্জ ১ আসনে রতনকে মনোনয়ন না দেওয়ার আহ্বান

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ১৯:৩৩



সুনামগঞ্জ ১ আসনে রতনকে মনোনয়ন না দেওয়ার আহ্বান

সুনামগঞ্জ ১ (ধর্মপাশা, তাহিরপুর ও জামালগঞ্জ) আসনের ৯জন মনোনয়ন প্রত্যাশী বৈঠক করে সুনামগঞ্জ ১ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের বদলে তাদের মধ্য থেকে যে কোনো একজনকে মনোনয়ন দানের দাবি জানিয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানী ঢাকার ক্যাপিটাল হোটেলে একত্রিত হয়ে তারা বৈঠক করে এ দাবি জানান। পরবর্তীতে তাদের এই দাবি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগকে ই-মেইল করে পাঠিয়ে দেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

উল্লেখ্য, এই ৯জন নেতা আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করে জমাও দিয়েছেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি সৈয়দ রফিকুল হক সুহেল, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি রেজাউল করিম শামীম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক হায়দার চোধুরী লিটন, সাবেক যুগ্ম সচিব ও আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমটির টিম সদস্য বিনয় ভুষণ তালুকদার, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রিড়া সম্পাদক অ্যাডভোকেট রনজিত সরকার, কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ সম্পদ অ্যাডভোকেট শামীমা শাহরিয়ার, জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের আহ্বায়ক ড. রফিকুল ইসলাম তালুকদার, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল হাসান চৌধুরী, ছাত্রনেতা শক্তিপদ রায়।

এ ছাড়াও বৈঠকে উপস্থিত থেকে দাবির প্রতি সংহতি জানান জেলা আওয়ামী সদস্য ও ধর্মপাশা আওয়ামী লীগ সহসভাপতি আলমগীর কবীর, তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য অমল কর, জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য নিজাম উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য শামীম আখঞ্জী প্রমুখ।

বৈঠকে উপস্থিত মনোনয়ন প্রত্যাশীরা জানান, মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের কারণে আওয়ামী লীগ আজ এই আসনে কোন্দলে জর্জড়িত। তিনি বিতর্কিত নানা কারণে তৃণমূল আওয়ামী লীগ থেকে বঞ্চিত। গত ১০ বছর জামায়াত বিএনপিকে কাছে টেনে দলের তৃণমূল নেতাকর্মীদের দূরে ঠেলে দিয়েছেন। গত ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের বিরোধিতা করে তিনি তাদের পরাজিত করিয়েছেন। এসব কারণে তাকে আর এই আসনে মনোনয়ন না দেওয়ার দাবি জানান মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতারা। বৈঠকে তৃণমূল নেতাকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে উপস্থিত সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী রেজাউল করিম শামীম বলেন, আমরা আমাদের নেত্রীকে ই-মেইল করে মোয়াজ্জেম হোসেন রতনকে মনোনয়ন না দেওয়ার অনুরোধ করেছি। বৈঠকে আমরা ৮জন মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলাম। একজন অন্যত্র থাকলেও তিনি আমাদের দাবির প্রতি সমর্থন করেছেন।

তিনি বলেন, মোয়াজ্জেম হোসেন গত ১০ বছর জামায়াত বিএনপিকে কাছে টেনে আমাদের দূরে ঠেলে দিয়েছিলেন। তার কারণে তৃণমূল আওয়ামী লীগ বিভক্ত। আমরা তার বদলে আমাদের ৯ মনোনয়ন প্রত্যাশীর মধ্যে যে কোনো একজনকে মনোনয়ন দানের দাবি জানিয়েছি।

মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের দুটি মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলেও তিনি ফোন ধরেননি



মন্তব্য