kalerkantho


চান্দিনায় দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ৩

চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

১৭ নভেম্বর, ২০১৮ ২২:৩৯



চান্দিনায় দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ৩

কুমিল্লার চান্দিনায় ছাত্রলীগ ও এলডিপি’র নেতা-কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের তিনজন আহত হয়েছেন। শনিবার (১৭ নভেম্বর) বিকাল পৌনে ৫টায় উপজেলার মহিচাইল বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

আহতরা হলেন- মহিচাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হক আব্দুল্লাহ (৫৫), একই গ্রামের আবদু মিয়ার ছেলে ছাত্রলীগ নেতা ওসমান গণি (২০), মোখলেছ মিয়ার ছেলে গণতান্ত্রিক ছাত্রদল নেতা রিফাত (২০)। 

আওয়ামী লীগ নেতা ও জেলা পরিষদ সদস্য জাহাঙ্গীর আলম জানান, রাজধানীর পল্টনে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনার প্রতিবাদে শনিবার বিকাল ৪টায় মহিচাইল উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। 

মিছিল শেষে নেতাকর্মীরা বাড়ি ফেরার পথে মহিচাইল হরিণা গ্রামের মধু মিয়ার ছেলে মাদক ব্যবসায়ী বিল্লাল ও মহিচাইল গ্রামের মোখলেছের ছেলে রিফাতের সঙ্গে ঝগড়া ও মারামারি হয়।

তার কিছুক্ষণ পর আমাদের নেতাকর্মীরা বাজার থেকে বাড়ি ফেরার সময় ছাতাড্ডা গ্রামের রাস্তার মাথায় এলডিপি’র লোকজন তাদের ওপর অতর্কিত হামলা করে। এতে আব্দুল হক আব্দুল্লাহ ও ওসমান গণি মারাত্মক আহত হয়। তাদেরকে চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

জাহাঙ্গীর আলম আরো জানান, বিল্লাল আমাদের দলের কোনো নেতা বা কর্মী নয়। তার সঙ্গে ঝগড়া ও মারামারির পর আমাদের লোকজনদের ওপর কেন অতর্কিত হামলা করা হয়েছে? আমরা এমন হামলার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাই এবং হামলাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনতে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। 

এলডিপি মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদের ভাগিনা গণতান্ত্রিক ছাত্রদল আহবায়ক রাজিব ভূইয়া জানান, মহিচাইল-ছাতাড্ডা রোডের পাকা রাস্তার সংস্কার কাজ করার সময় মহিচাইল হরিনা গ্রামের মধু মিয়ার ছেলে বিল্লাল ও আলম মজুমদারের ছেলে রাজু মজুমদার ঠিকাদারের কাছে চাঁদা চেয়েছিল। 

ওই ঘটনায় মহিচাইলের লোকজনের সঙ্গে রিফাতও চাঁদাবাজ বিল্লালকে আটক করে মারধর করে। ওই ঘটনার পর থেকে বিল্লাল ও রাজু ক্ষুব্ধ হয় রিফাতের ওপর। শনিবার ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিলের পর রিফাতকে একা পেয়ে বিল্লাল ও রাজু মারধর করে এবং রিফাতকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। পরবর্তীতে ওই সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে রিফাতের লোকজন ক্ষিপ্ত হলে ওই ঘটনা ঘটে। 

রাজিব আরো জানান, চান্দিনা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছার পর আমাদের একটি দোকানের ভেতর থেকে আমার মোটরসাইকেলটি নিয়ে আসে। 

এ ব্যাপারে চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল ফয়সল জানান, ঘটনার পর পরই আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।



মন্তব্য