kalerkantho


নীলফামারীতে যুবসমাবেশে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর

নির্বাচনে না আসার ভুল বিএনপি আর করবে না

নীলফামারী প্রতিনিধি   

১৭ নভেম্বর, ২০১৮ ২১:৩১



নির্বাচনে না আসার ভুল বিএনপি আর করবে না

সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, বিএনপি অনেক দাবি করেছে, তাদের দাবি যদি একটাও মানা না হয় তাহলেও তারা নির্বাচনে আসবেন। ২০১৪ সালের মতো নির্বাচনে না আসার ভুল আর বিএনপি করবে না।

আজ শনিবার দুপুরে নীলফামারী শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে আওয়ামী যুবলীগের ৪৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জেলা যুবলীগ আয়োজিত যুব সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, নির্বাচনকে হালকা করে দেখার কোনো সুযোগ নেই। বিএনপি যখন নির্বাচনে আসবে, তখন তারা প্রীতি ফুটবল ম্যাচ খেলতে আসবেন না। হারলে হারলাম জিতলে জিতলাম এমন মনোভাব নিয়ে তারা কিন্তু আসবেন না, তারা একটা যুদ্ধ করার মনোভাব নিয়েই আসবেন।

নেতাকর্মীদের সতর্ক করে দিয়ে মন্ত্রী আরো বলেন, এই নির্বাচনে তারা ধর্মের অপব্যবহার করবে, যেটা তারা আগাগোরা করেছে, মানুষকে ভুল বোঝবে, বিশেষ করে আমাদের মা বোনেরা সহজ সরল, তাদের ঘরে ঘরে গিয়ে ভুল বোঝাবে। দ্বিতীয়ত, তাদের প্রচুর টাকা আছে, তারা টাকার ব্যবহার করবে, যেহেতু টাকার প্রতি মানুষের দুর্বলতাও আছে, সুতরাং যে মানুষটিকে মনে করছি সে আমার পক্ষের মানুষ সে যে রাতারাতি বদলে যাবে না এমন নয়। তৃতীয়ত, বিশৃঙ্খলা তৈরির ক্ষেত্রেও তারা কিন্তু চ্যাম্পিয়ান।

তিনি বলেন, ২০১৩-১৪ সালে তারা অগ্নি সন্ত্রাস চালিয়ে বাসে আগুন দিয়ে জীবন্ত মানুষকে হত্যা করেছে, পুলিশ হত্যা করেছে, রেল লাইন তুলে ফেলেছে, রাস্তাঘাট কেটে দিয়েছে, বিদ্যুতের খুঁটি তুলেছে, স্কুল কলেজ বন্ধ করে দিয়েছে, দেশটাকে অচল করে দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছে। এবারো কিছু কিছু নমুনা কিন্তু দেখা যাচ্ছে। দুইদিন আগে তারা পুলিশের তিনটা গাড়ি পুড়েছে। পুলিশের কিন্তু সেখানে বিন্দুমাত্র উসকানি ছিল না। ওই হামলায় তাদের মহিলাদের হাতেও লাঠি ছিল।

বিএনপির সাথে জামায়াতের সম্পৃক্ততার কথায় সংস্কৃতিমন্ত্রী বলেন, তাদের ওপর আছে ভূত, সেই ভূতের নাম হলো জামায়াতে ইসলাম। ওই জামায়েতে ইসলাম কিন্তু উসকানির কাজগুলো করছে, তাদের প্রস্তুতিও আছে। তারা আমাদের যুব সমাজের কিছু যুবককে বিভ্রান্ত করতে সক্ষম হয়েছে। এজন্য আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। আমাদের শক্তি আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক, যারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক তারা কোনোদিন অন্যায়ের সাথে আপোষ করেন না। আমাদের আজকের শক্তি বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি শুধু আওয়ামী লীগের নেত্রী নন, তিনি দেশের ১৭ কোটি মানুষের নেত্রী’।

জেলা যুবলীগের সভাপতি রমেন্দ্র নাথ বর্ধনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তৃতা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজুর রশীদ, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাহিদ মাহমুদ, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলিমুদ্দিন বসুনিয়া, সাধারণ সম্পাদক আবুজার রহমান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মসফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আল মাসুদ আলাল, জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি আরিফা সুলতানা, সাধারণ সম্পাদক শান্তনা চক্রবর্তী, ডোমার উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

পরে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের নেতৃত্বে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শহীদ মিনার চত্বরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

সমাবেশে জেলার ডোমার, ডিমলা, জলঢাকা, কিশোরগঞ্জ উপজেলা ও সদর উপজেলার পাঁচ সহস্রাধীক নেতাকর্মী ও সমর্থক অংশ নেয়। 



মন্তব্য