kalerkantho


শেরপুরে কিশোরী গণধর্ষণের অভিযোগে দুই ধর্ষকের যাবজ্জীবন

শেরপুর প্রতিনিধি   

১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ২১:৫৪



শেরপুরে কিশোরী গণধর্ষণের অভিযোগে দুই ধর্ষকের যাবজ্জীবন

শেরপুরে কিশোরী গণধর্ষণের মামলার রায়ে দুই যুবকের যাজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ঘোষণা করা হয়েছে। শিশু আদালতের বিচারক অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. মোসলেহ উদ্দিন আজ মঙ্গলবার দুপুরে এ সাজার রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্তরা হলেন সদর উপজেলার ঘুঘুরাকান্দি গ্রামের শওকত আলীর ছেলে সোহেল মিয়া এবং রামের চর গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে সবুজ মিয়া। দণ্ডপ্রাপ্তের উপস্থিতিতে ঘোষিত এ রায়ে একইসাথে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ ঘোষণা করা হয়েছে। রূপালি বেগম নামে আরেকজনের বিরুদ্ধে অপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

শিশু আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু রায়ের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, রায়ে আসামিদের বিরুদ্ধে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (৩) ধারায় গণধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক এ সাজার রায় ঘোষণা করেছেন।

পিপি মামলার নথির উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, ২০১৫ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর রাত আটটার দিকে শেরপুর সদর উপজেলার বলাইরচর ইউনিয়নের চকসাহাব্দি গ্রামের দরিদ্র ইজিবাইক চালকের ত্রয়োদশী কন্যাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় পাশের বাড়ির রূপালি বেগম নামে এক নারী। পরে সাজাপ্রাপ্ত ওই দুই যুবক ইজিবাইক চালকের কন্যাকে পাশ্ববর্তী একটি পুকুরপাড়ে নিয়ে জোরপূর্বক গণধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে সদর থানায় গণধর্ষণের মামলা দায়ের করলে পুলিশ ধর্ষক সোহেল মিয়া ও সবুজ মিয়াকে গ্রেপ্তার করে। তারা পুলিশের নিকট তরুণীকে ধর্ষণের বিষয়ে স্বীকারোক্তি দেয়। পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার তৎকালীণ ওসি মাজহারুল করিম ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি তিনজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। বিচারিক প্রক্রিয়ায় ৬ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মঙ্গলবার আদালত দুই ধর্ষণের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেন।



মন্তব্য