kalerkantho


আশুলিয়ায় পৃথক স্থান থেকে নারী শ্রমিক ও শিশুর লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:৪৬



আশুলিয়ায় পৃথক স্থান থেকে নারী শ্রমিক ও শিশুর লাশ উদ্ধার

প্রতীকী ছবি

আশুলিয়ায় পৃথক স্থান থেকে একজন নারী পোশাক শ্রমিক ও ১১ বছর বয়সের একটি কন্যা শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শ্যামলী আক্তার (২৫) নামের ওই পোশাক শ্রমিককে তার স্বামী শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার দুপুরে আশুলিয়ার বারইপাড়া এলাকার বাসা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে আশুলিয়া থানা পুলিশ। ঘটনার পর থেকে তার স্বামী পলাতক রয়েছেন। এ ছাড়া সোমবার বিকেলে ফুলমতি নামে একজন শিশুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয় আশুলিয়ার বাংলাবাজারের অদূরে গুমাইল এলাকা থেকে।

প্রতিবেশীদের বরাত দিয়ে আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নাহিদ হাসান জানান, যৌতুকের টাকা না পেয়ে শ্যামলী আক্তার নামের ওই পোশাক শ্রমিককে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে তার স্বামী সিরাজুল ইসলাম। স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে সোমবার দুপুরে বারইপাড়া এলাকার ভাড়া বাসা থেকে শ্যামলীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত শ্যামলী আক্তার সিরাজুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তির স্ত্রী বলে প্রতিবেশীরা জানালেও তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যায়নি। 

শ্যামলী তার স্বামীর সঙ্গে ভাড়া বাসায় থেকে একটি পোশাক কারখানায় কাজ করতেন। তবে তার স্বামী সিরাজুল কী করতেন তা জানা যায়নি। বেশ কিছু দিন ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ লেগে থাকত। সোমবার সকালে শ্যামলীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর সিরাজুল পালিয়ে যান বলে প্রতিবেশীদের ধারণা। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। 

অন্যদিকে আশুলিয়ার বাংলাবাজারের অদূরে গুমাইল এলাকায় ফুলমতি নামের ১১ বছরের এক শিশুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে আশুলিয়া থানা পুলিশ। আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মমিনুল হক জানান, শিশুটির মৃত্যু রহস্যজনক। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।



মন্তব্য