kalerkantho


শেরপুর জেলা ফুটবল লিগে চ্যাম্পিয়ন রাইজিং ক্লাব

সেরা খেলোয়াড় ইমরান

শেরপুর প্রতিনিধি   

১২ নভেম্বর, ২০১৮ ২১:২৩



শেরপুর জেলা ফুটবল লিগে চ্যাম্পিয়ন রাইজিং ক্লাব

সাইফ পাওয়ার ব্যাটারি শেরপুর জেলা ফুটবল লিগে রাইজিং ক্লাব চ্যাম্পিয়ন ও শ্রীবরদী উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা রানারআপ হয়েছে। লিগের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে স্বর্ণপদক পেয়েছেন রাইজিং ক্লাবের অধিনায়ক মাঝ মাঠের খেলোয়াড় ইমরান ইসলাম।

আজ সোমবার স্থানীয় শহীদ দারোগ আলী পৌরপার্ক মাঠে অনুষ্ঠিত লিগের ফাইনাল খেলায় রাইজিং ক্লাব ১-০ গোলে শ্রীবরদী উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা দলকে পারজিত করে। বিজয়ী দলের আক্রমণভাগের খেলোয়াড় নবি হোসেন রেজভী একমাত্র গোলটি করেন। খেলা শেষে বিজয়ী ও বিজিত দলের মাঝে ট্রফি ও প্রাইজমানি বিতরণ করেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নাজিমুল হক নাজিম, জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মানিক দত্ত।

চ্যাম্পিয়ন দলকে নগদ ১৫ হাজার টাকা এবং রানারআপ দলকে নগদ ১০ হাজার টাকা প্রাইজমানি প্রদান করা হয়। এ ছাড়া বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি, শেরপুর শাখার সৌজন্যে লীগের সেরা খেলোয়াড় রাইজিং ক্লাবের ইমরান ইসলামকে ২১ ক্যারেটের আট আনা ওজনের একটি স্বর্ণের মেডেল প্রদান করা হয়।

এ ছাড়া ৩ ম্যাচে ৪ গোল করে কাকলি স্পোর্টিং ক্লাবের স্ট্রাইকার গাফিল মিয়া লীগের সর্বোচ্চ গোলদাতা, শ্রীবরদী উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার গোলকিপার বাপ্পি লিগের সেরা গোলকিপার এবং ফাইনালের গোলাদাতা রাইজিং ক্লাবের রেজভীকে ‘ম্যান অব দি ফাইনাল’ হিসেবে জুয়েলার্স সমিতির সৌজন্যে রূপার মেডেল পুরস্কার প্রদান করা হয়। স্থানীয় লুতফিয়া মটরসের সৌজন্যে সুশৃঙ্খল দল হিসেবে কাকলি স্পোর্টিং ক্লাবকে ‘ফেয়ার প্লে ট্রফি’ প্রদান করা হয়।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে জুয়েলার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক সুশীল মালাকার, সহসভাপতি মো. শাহজাহান মিয়া ও নেতৃবৃন্দ, স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি এবং বিভিন্ন ক্লাব কর্মকর্তা ও স্থানীয় ক্রীড়া সংগঠকরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে বিপুল সংখ্যক দর্শক খেলাটি উপভোগ করেন। এদিন জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে খেলা থেকে অবসরগ্রহণ করায় ফুটবলার কাউন্সিলর বাদশা ও মনির হোসেনকে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্রেস্ট দিয়ে বিদায় জানানো হয়।

গত ২৫ অক্টোবর থেকে শেরপুর জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে স্থানীয় শহীদ দারোগ আলী পৌরপার্ক মাঠে সাইফ পাওয়ার ব্যাটারি শেরপুর জেলা ফুটবল লিগ-২০১৮ শুরু হয়। এবারের ফুটবল লিগে মোট ১২টি দল ৪টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে। দলগুলো হলো-রাইজিং স্পোর্টিং ক্লাব, কাকলী স্পের্টিং ক্লাব, দুর্বার তরুণ সংঘ, সবুজসেনা, মোহাম্মদ আলী স্পোর্টিং ক্লাব, অগ্রগামী ক্লাব, উত্তরা স্পোর্টিং ক্লাব, প্রবীণ একাদশ, কুসুমকলি স্পোর্টিং ক্লাব, হিমাচল ক্লাব, শ্রীবরদী উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা ও অ্যাকটিভ ক্লাব।



মন্তব্য