kalerkantho


নন্দীগ্রামে বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২০ অক্টোবর, ২০১৮ ১৫:২২



নন্দীগ্রামে বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও

বগুড়ার নন্দীগ্রাম পৌর শহরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এর হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেল শামিমা খাতুন শ্যামলা (১২) নামের এক স্কুলছাত্রী।

গতকাল শুক্রবার রাতে নন্দীগ্রাম পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের শেরপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। শামিমা খাতুন শ্যামলা ওই এলাকার শাহিনুর রহমানের মেয়ে ও সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী।

ইউএনও ও স্থানীয় সূত্র জানায়, শামিমা খাতুন এর বিয়ে উপজেলার বীরপলি গ্রামের সহকারী শিক্ষক মকবুল হোসেনের ছেলে জাকারিয়া হোসেনের সঙ্গে ঠিক করেন তার পরিবারের লোকজন। শুক্রবার রাতে এ বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। সে উপলক্ষে কনের বাড়িতে বিয়ের আয়োজন চলছিল। সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. শারমিন আখতার পুলিশ নিয়ে বিয়ে বাড়িতে হাজির হন। তারা সেখানে গিয়ে কনের বাবা-মা এবং পরিবারের সকলকে বিয়ের কুফল সম্পর্কে অবহিত করলে ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত তারা মেয়ের বিয়ে দেবে না বলে মুচলেকা দেন।

এদিকে বিয়ের বাড়িতে ইউএনওর উপস্থিতির খবর পেয়ে বর পক্ষের লোকজন পথিমধ্য থেকে ফিরে যান।



মন্তব্য