kalerkantho


মানিকগঞ্জ-২ আসন

আ. লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীর শোডাউনে হামলার অভিযোগ

সিঙ্গাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২০ অক্টোবর, ২০১৮ ০৪:২৭



আ. লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীর শোডাউনে হামলার অভিযোগ

ছবি: কালের কণ্ঠ

মানিকগঞ্জ-২ (সিঙ্গাইর-হরিরামপুর) আসনের আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী গোলাম মনির হোসেনের মোটরসাইকেল শোডাউনে নিজ দলের সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের সমর্থকদের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার বিকাল ৩টার দিকে জেলার সিঙ্গাইর উপজেলার জামসা ইউনিয়নের সারারিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। হামলায় উভয় পক্ষের অন্তত ২৪-২৫ জন আহত ও ১৪টি মোটরসাইকেল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে অভিযুক্তরা হামলার কথা অস্বীকার করে বলেন, গোলাম মনির হোসেনের লোকজন তাঁদের পথ আটকে মারধর ও মোটরসাইকেল ভাঙচুর চালিয়েছে।

গোলাম মনির হোসেন জানান, আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গতকাল শুক্রবার মোটরসাইকেল শোডাউনের আয়োজন করা হয়। মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার হাটিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ থেকে পাঁচ শতাধিক মোটরসাইকেলের অংশগ্রহণে শোডাউন শুরু হয়। বিকাল ৩টার দিকে সিঙ্গাইর উপজেলার জামসা ইউনিয়নের সারারিয়া এলাকায় পৌঁছলে স্থানীয় সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের সমর্থক জামশা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন ও তার সহযোগী তোফাজ্জল হোসেন রবিন, রাসেল, জনি, দুর্জয়, আরিফ, নাহিদ, মাহফুজ, ইমরান, রনি, আশিক, সাকিব ও জয়সহ ২০-৩০ জন লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে মোটরসাইকেল শোডাউনে হামলা চালায়। এতে তার ২০ জন নেতাকর্মী আহত হয়। ভাঙচুর করা হয় ১০টি মোটরসাইকেল।

এ ঘটনার প্রতিবাদে এদিন সন্ধ্যায় হাটিপাড়া এলাকায় প্রতিবাদ সমাবেশ করে গোলাম মনির হোসেনের সমর্থকরা। হাটিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মফিজ উদ্দিন মোল্লার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য এস, এম আলমগীর হোসেন, হাটিপাড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন সিদ্দিকী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মফিজ উদ্দিন, হাটিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আক্কাস আলী ও হরিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা লুৎফর রহামান প্রমুখ। সমাবেশ থেকে মোটরসাইকেল শোডাউনে হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও দ্রুত দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানানো হয়।

অভিযুক্ত জামশা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন হামলার কথা অস্বীকার করে বলেন, শুক্রবার আমরা ১০/১২টি মোটরসাইকেল নিয়ে পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনে বের হই। সারারিয়া এলাকা অতিক্রম করার সময় মনোনয়ন প্রত্যাশী গোলাম মনির হোসেনের মোটরসাইকেল শোডাউনে অংশ নেওয়া রফিকুল ইসলাম, নাসির উদ্দিন, রাজিব, সজিব, আব্দুল আজিজ ও সুমনসহ আরো অনেকেই আমাদের পথ আটকে দেয়। সাইড দেওয়ার কথা বললে তাঁরা আমাদের ওপর হামলা চালায়। এক পর্যায় শোডাউন থেকে আমাদের লক্ষ করে গুলি চালানো হয়। এ সময় তাঁদের ৪-৫ জনকে মারধরসহ ৪টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

সিঙ্গাইর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মতিয়ার রহমান মিঞা জানান, গোলাম মনির হোসেনকে মোটরসাইকেল শোডাউন করতে নিষেধ করা হয়েছিল। তিনি নিষেধ উপেক্ষা করে মোটরসাইকেল শোডাউন বের করেন। হামলার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত করা হয়। বিষয়টি খতিয়ে দেখে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



মন্তব্য