kalerkantho


লক্ষ্মীপুরে ব্যবসায়ীর দোকানঘর ভাঙচুর, আদালতে মামলা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

১৭ অক্টোবর, ২০১৮ ০১:১৩



লক্ষ্মীপুরে ব্যবসায়ীর দোকানঘর ভাঙচুর, আদালতে মামলা

ছবি: কালের কণ্ঠ

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে হামলা চালিয়ে ব্যবসায়ীর দোকানঘর ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় ১৪ জনের নামে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী নাছিম আহমেদ বাবু বাদী লক্ষ্মীপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ মামলা দায়ের করেন। এতে ৪ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ১০ জনকে আসামি করা হয়। ভুক্তভোগী নাছিম রামগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ চন্ডিপুর গ্রামের মৃত নুরুল আমিন দুলালের ছেলে।

এদিকে এ ঘটনার বিচার চেয়ে মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার পদ্মা বাজারের ব্যবসায়ীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন। 

এজাহার সূত্রে জানায়, উপজেলার দক্ষিণ চন্ডিপুর গ্রামের নাছিমের সঙ্গে তার চাচা আবদুল মান্নানদের সঙ্গে বাড়ির জমিসহ ওই দোকান (নাবেল টেলিকম) নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এর জের ধরে সোমবার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে মান্নান লোকজন নিয়ে উপজেলা পদ্মা বাজারের ওই দোকানে এসে নাছিমের ওপর হামলা করে। এ সময় কিছু বুঝে উঠার আগেই নাছিমকে এলোপাতাড়ি কিল, ঘুষিসহ লাঠি দিয়ে পেটাতে থাকে তারা। একপর্যায়ে শ্বাসরোধে হত্যা করার চেষ্টা করা হলে কোনোরকম প্রাণে রক্ষা পান তিনি। পরে দোকানে থাকা ল্যাপটপ, প্রিন্টার ভাঙচুর এবং টাকা লুটে নিয়ে যায়। এতে প্রায় ৯ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি দাবি করছেন। তার চিৎকার চেচামেচিতে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে লাঠিসোটা দেখিয়ে তারা পালিয়ে যায়। পরে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় নাছিম বাদী হয়ে লক্ষ্মীপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) তদন্তের নির্দেশ দেয়।

নাছিম উদ্দিন বাবু বলেন, ঘটনার সময় বাজারের দোকানপাট কম খোলা ছিল। দুপুরের খাবার ও নামাজ পড়তে চলে গেছেন ব্যবসায়ীরা। এ সুযোগে মান্নান লোকজন নিয়ে আমার ওপর হামলা করে। পরে আমাকে বাঁচাতে আশপাশের লোকজন আসলে লাঠিসোটার ভয় দেখিয়ে করে তারা পালিয়ে যায়। 

বাদি পক্ষের আইনজীবী জসিম উদ্দিন পারভেজ বলেন, মামলাটির শুনানি হয়েছে। গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। 

পদ্মা বাজার সমিতির সভাপতি জহিরুল ইসলাম বলেন, নাছিমের বাবা দুলালের সঙ্গে মান্নানদের বাড়ির জমি ও দোকানটি নিয়ে বিরোধ ছিল। এ নিয়ে মামলা-মোকাদ্দমাও চলছে। দুলালের মৃত্যুর পর মান্নান জোরপূর্বক দোকানটি দখলে নিতে বিভিন্নভাবে পাঁয়তারা করেছে। দোকান দখলে নেওয়ার চেষ্টায় নাছিমের ওপর হামলা করা হয়েছে বলে শুনেছি। তবে ঘটনার সময় আমি বাজারে ছিলাম না।



মন্তব্য