kalerkantho


প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তির অভিযোগ

জেলে থাকা সেই চবি শিক্ষক মাইদুল বরখাস্ত

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:৩৬



জেলে থাকা সেই চবি শিক্ষক মাইদুল বরখাস্ত

অধ্যাপক মাইদুল ইসলাম। ছবি: কালের কণ্ঠ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে ফেসবুকে কটূক্তি করার অভিযোগে তথ্য প্রযুক্তি আইনের মামলায় জেলহাজতে থাকা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাইদুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, যে কোন অপরাধে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী যদি জেলে থাকেন নিয়ম অনুযায়ী তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। সেই নিয়ম অনুযায়ী মাইদুল ইসলামকে বরখাস্ত করা হয়েছে। 

উপাচার্য আরো বলেন, চবি কর্মচারী (দক্ষতা ও শৃঙ্খলা) সংবিধির ১৫ (এ) ধারানুসারে পুনরাদেশ না দেয়া পর্যন্ত তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে বরখাস্ত থাকাকালীন তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মানুযায়ী জীবিকা ভাতা পাবেন।

উল্লেখ্য, উচ্চ আদালতের ৮ সপ্তাহের জামিন শেষে গত ২৪ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের জেলা ও দায়রা জজ মো. ইসমাইল হোসেনের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন শিক্ষক মাইদুল। শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

এর আগে, গত ১৭ জুলাই (মঙ্গলবার) মাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার  অভিযোগে অবাঞ্ছিত ঘোষণা ও চাকরিচ্যুতির দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীকে স্মারকলিপি প্রদান ও মানববন্ধন করেন শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। 

এ ঘটনায় শিক্ষক মাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে গত ২৩ জুলাই হাটহাজারী থানায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ১০-১১ সেশনের শিক্ষার্থী মো. ইফতেখার উদ্দিন আয়াজ বাদী হয়ে চবি নাট্যকলা বিভাগের ১০-১১ সেশনের শিক্ষার্থী রকিবুল হাসান ও অর্থনীতি বিভাগের ১০-১১ সেশনের শিক্ষার্থী ইমাম উদ্দিন ফয়সাল পারভেজকে সাক্ষী করে তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি আইন-২০০৬ এর ৫৭ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। সে মামলায় শিক্ষক মাইদুল জেল হাজতে রয়েছেন।



মন্তব্য