kalerkantho


পঞ্চগড়ে বাবা-মাকে হত্যার দায়ে সন্তানের যাবজ্জীবন

পঞ্চগড় প্রতিনিধি    

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৯:২৩



পঞ্চগড়ে বাবা-মাকে হত্যার দায়ে সন্তানের যাবজ্জীবন

পঞ্চগড়ে বাবা-মাকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ছেলে মঞ্জুরুল হাসান শান্তকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ সোমবার দুপুরে পঞ্চগড় আদালতের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আনিসুর রহমান এই দণ্ডাদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২২ মার্চ দুপুরে পঞ্চগড় জেলা শহরের পুরাতন ক্যাম্প এলাকায় মঞ্জুরুল হাসান শান্ত পারিবারিক কলহের জেরে তার বাবা মিজানুর রহমান (৬৫) ও মা সুলতানা বেগম রিনাকে (৫৫) ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। এ সময় প্রতিবেশীদের চিৎকারে পাশে থাকা পঞ্চগড় থানার পুলিশরা ঘটনাস্থলে গিয়ে শান্তকে আটক করতে গেলে তাদেরও উপর হামলা করে শান্ত। এ সময় পুলিশসহ ৬ জন আহত হয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে শান্তকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

এ ঘটনায় ওই দিনই নিহতদের বড় ছেলে আখতারুজ্জামান সাগর বাদী হয়ে তারই ছোট ভাই মঞ্জুরুল হাসান শান্তকে আসামি করে পঞ্চগড় সদর থানায় একটি হত্যা মামলা করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই রঞ্জু আহম্মেদ গত ২০১৫ সালের ৩১ জুলাই আসামি শান্তকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট প্রদান করেন। দীর্ঘদিন সাক্ষীদের সাক্ষগ্রহণ ও বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে সোমবার পঞ্চগড় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আনিসুর রহমান আসামিদের উপস্থিতিতে রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে আসামি মঞ্জুরুল হাসান শান্তকে তার বাবা মাকে হত্যার দাযে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো দুই বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেন। রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন পঞ্চগড় জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) এ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম।

তিনি বলেন, আসামি মঞ্জুরুল হাসান শান্ত তার বাবা মাকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে। আমরা এটি আদালতে প্রমাণ করতে পেরেছি। আমরা আদালতে আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার আবেদন করেছিলাম। আদালত তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো দুই বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেন।



মন্তব্য