kalerkantho


ঈশ্বরদীতে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:৫৭



ঈশ্বরদীতে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

পাবনা ঈশ্বরদীর বড়ইচারা গ্রামে তৃতীয় শ্রেণির পুষ্প খাতুন (৯) নামের এক শিশু ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়ে পাবনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। গত বৃহস্পতিবার স্কুল ছুটির পর বাড়ি ফেরার পথে হযরত আলী হজো নামের এক বৃদ্ধ তার মুখ চেপে ধরে পাশের লিচু বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

পুষ্প উপজেলার ৪৪ নং বড়ইচারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী এবং চড়ইচারা ঈদগাপাড়া এলাকার চমন আলী প্রামাণিকের মেয়ে। এ ঘটনায় পুষ্পের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ধর্ষক হজোকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। অভিযুক্ত ধর্ষক হজো একই এলাকার প্রভাবশালী রবিউল, সেন্টু ও পিন্টুর বাবা।

ভিক্টিমের বাবা চমন আলী কালের কণ্ঠকে বলেন, বৃহস্পতিবার স্কুল ছুটির পর পুষ্প নিজ বাড়ি ফিরতে ছিল। বেলা আনুমানিক সাড়ে তিনটার দিকে পুষ্প রক্তাক্ত অবস্থায় কাঁদতে কাঁদতে বাড়িতে আসে। বাড়ির লোকজন প্রথমে বুঝতে না পেরে তাকে গোসল করাতে গেলে বিষয়টি ধরা পড়ে। কিন্তু অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণে পুষ্প অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে দ্রুত পাবনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় পুষ্পর জ্ঞান ফিরে আসার পর তাকে জিজ্ঞাসা করলে বিস্তারিত বিষয়টি জানা যায়। মেয়ের অসুস্থতার খবর পেয়ে কর্মস্থল ঢাকা থেকে রওনা হয়ে রাতেই পাবনা মেডিক্যালে যান পুষ্প'র। সেখান থেকে সব শুনে বৃহস্পতিবার রাতেই ঈশ্বরদী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ছলিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের ১ নং ওয়ার্ড মেম্বর নুরুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, বিষয়টি তিনি লোকমুখে শুনেছেন। ঘটনাটি স্কুলের বাইরে ঘটনায় তিনি কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারবেন না। তবে এই ঘৃণীত কাজের জন্য ধর্ষকের কঠোর শাস্তি দাবি করেন তিনি। 

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা (এস.আই) বিকাশ চক্রবর্তি কালের কণ্ঠকে বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে ভিক্টিমের বাবা চমন বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। ওই দিন রাত সাড়ে ১১ টার অভিযান চালিয়ে ধর্ষক হজোকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। 

এদিকে শিশু ধর্ষণের খবর আজ শনিবার উপজেলার সকল স্কুলে ও শিক্ষকদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে উপজেলাব্যাপী ধর্ষকের কঠোর শাস্তির দাবিতে বিভিন্ন কর্মসুচি পালনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানান শিক্ষক নেতা হেলাল উদ্দিন।



মন্তব্য