kalerkantho


লালমনিরহাট-১

জাপা ভেঙে পাল্লা ভারী আ. লীগের

লালমনিরহাট ও হাতীবান্ধা প্রতিনিধি   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৩:০৯



জাপা ভেঙে পাল্লা ভারী আ. লীগের

নির্বাচনের আগ মুহূর্তে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় জাতীয় পার্টির অনেক নেতাকর্মী ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছে। আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, এর ফলে লালমনিরহাট-১ (হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম) আসনে আওয়ামী লীগের পাল্লা আরো ভারী হলো। তবে ভোটে এর প্রভাব পড়বে না বলে দাবি করেছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। 

গত রবিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহার হোসেনের হাতে ফুল দিয়ে আওয়ামী লীগে যোগ দেন উপজেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সভাপতি এম জি মোস্তফা। এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন উপজেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিলনসহ শতাধিক নেতাকর্মী।

ওই আসনে এরশাদের পছন্দের প্রার্থীর মনোনয়ন সহজ করতে গত ফেব্রুয়ারিতে মোস্তফা, মিলনসহ বেশ কয়েকজন নেতাকে দল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। মূলত সেই ক্ষোভ থেকেই আরো অনেককে সঙ্গে নিয়ে তাঁরা আওয়ামী লীগে যোগ দিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এম জি মোস্তফা দীর্ঘদিন ধরে জাতীয় পার্টির রাজনীতিতে সম্পৃক্ত ছিলেন। উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতিও ছিলেন অনেক দিন। দুইবার ছিলেন সিংগীমারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। বর্তমানে তিনি হাতীবান্ধা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। আসন্ন নির্বাচনে লালমনিরহাট-১ আসনে জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী মেজর (অব.) খালেদ আখতারকে মেনে নিতে পারেননি মোস্তফাসহ দলের অনেকেই।

এদিকে গত রবিবারের অনুষ্ঠানে হাতীবান্ধা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বদিউজ্জামান ভেলু বলেন, ‘জাপার নেতাকর্মীরা আমাদের দলে আসায় দলের আরো লাভ হলো, যার ইতিবাচক প্রভাব অবশ্যই আগামী নির্বাচনে পড়বে।’

অন্যদিকে উপজেলা জাতীয় পার্টির সদস্যসচিব রেজাউল করিম দাবি করেন, ‘যে কয়েকজন অন্য দলে গেছে, তাতে আগামী নির্বাচনে প্রভাব পড়ার কোনো সুযোগ নেই।’ 



মন্তব্য