kalerkantho


চিতলমারী ইউএনও'র ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

নৈশ প্রহরী নিয়োগে দুর্নীতিবাজদের সতর্কবার্তা

চিতলমারী-কচুয়া (বাগেরহাট) প্রতিনিধি    

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:১২



নৈশ প্রহরী নিয়োগে দুর্নীতিবাজদের সতর্কবার্তা

বাগেরহাটের চিতলমারীতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরি কাম-নৈশ প্রহরী নিয়োগে দুর্নীতি বন্ধ করতে ব্যতিক্রমী এক উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবু সাঈদ। নিয়োগে টাকা লেনদেনকারীদের সতর্কবার্তা প্রদান করেছেন তিনি।

আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত এই রিপোর্ট লেখাকালে নিয়োগ পরীক্ষা চলছিল বলে জানান নিয়োগ বোর্ডের সদস্য সচিব উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. মোজাফ্ফর উদ্দীন। এদিন সকাল নয়টায় ইউএনও'র ব্যক্তিগত ফেসবুক হতে পাঠানো সতর্কবার্তায় বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত ১২৫ জন মন্তব্য, ১২জন শেয়ার এবং ৪৪৫ জনে লাইক করেছেন।

মঙ্গলবার সকাল নয়টার দিকে চিতলমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.  আবু সাইদ তার ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন, 'আজ থেকে শুরু হতে যাচ্ছে দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগের ভাইবা। চাকরি পেতে যারা বিভিন্নজনকে টাকা দিয়েছেন, তাদের তালিকা আমরা সংগ্রহ করতে পেরেছি। নিয়োগ বোর্ডের সভাপতি হিসাবে তাদেরকে সতর্ক করছি, আপনারা প্রমাণসাপেক্ষে অযোগ্য বিবেচিত হবেন। অতএব, টাকা নয়, নিজের মেধার ভরসায় ভাইবা দিতে আসুন। আর যাদের টাকা দিয়েছেন, তাদের কাছ থেকে টাকা ফিরিয়ে নিন'।

নিয়োগ বোর্ডের সদস্য সচিব চিতলমারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. মোজাফ্ফর উদ্দীন বলেন, এই নিয়োগ বোর্ডের সভাপতি ইউএনও স্যার এবং মাননীয় এমপি শেখ হেলাল উদ্দীনের প্রতিনিধি হিসেবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পীযূষ কান্তি রায় উপস্থিত আছেন। আমরা সতর্ক যাতে কোনো প্রকার দুর্নীতি না হয়। ১৫টি স্কুলের মধ্যে ১৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৬টি স্কুলের নিয়োগ পরীক্ষা। এই পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ৪৮জন প্রার্থী।

স্কুল ৬টি হচ্ছে- হাড়িয়ারঘোপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হাড়িয়ারঘোপ গাঙপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাননচক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ শৈলদাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কুড়ালতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং কুনিয়া পূর্বপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।’

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবু সাঈদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 



মন্তব্য