kalerkantho


ভোলায় মুকুল এমপি

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁকে হ্যাট্রিকের সুযোগ করে দিন

ভোলা প্রতিনিধি   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২১:০৯



প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁকে হ্যাট্রিকের সুযোগ করে দিন

এই দেশে একদিন ক্ষুধা ও দারিদ্রতা ছিল। এ দেশকে যারা তলাবিহীন ঝুড়ি বলতো তারাই আজ আমাদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। এমনটা কেন বা কার কারণে সম্ভব হয়েছে? তা একমাত্র সম্ভব হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য। এই মানুষটি যদি হারিয়ে যান, বাংলাদেশ দুই শত বছর পিছিয়ে পড়বে।
আজ শুক্রবার বিকেলে দৌলতখান উপজেলার গজনবী স্টেডিয়ামে আয়োজিত 'জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট (অনুর্ধ ১৭)' এর ফাইনাল খেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন ভোলা ২ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব আলী আজম মুকুল এমপি। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দৌলতখান উপজেলায় এ টুর্নামেন্ট আয়োজিত হয়।
 
জনগণের উদ্দেশে তিনি আরো বলেন, যতো ষড়যন্ত্রই হোক না কেন, আপনারা সতর্কতার সাথে তা মোকাবেলা করে আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তৃতীয়বারের জন্য নির্বাচিত করুন। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁকে হ্যাট্রিকের সুযোগ করে দিন।  
 
তিনি আরো বলেন, আমরা যে লক্ষ্য নির্ধারণ করে রাজনীতি করি, একটি শিক্ষিত জাতি আমাদেরকে সে লক্ষ্য পৌঁছে দেয়। আমাদের লক্ষ্য একটিই। ২০২১ সালে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশ এবং '৪১ সালের মধ্যে উন্নত মডেল দেশে রূপান্তরিত করা। এ জন্য আমাদের শিক্ষিত হতে হবে। পাশাপাশি খেলাধুলায় আমাদের মনোনিবেশ করতে হবে। 
 
এ টুর্নামেন্টে মোট ১০টি দল অংশগ্রহণ করে। যেখানে ২টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে নক আউট পদ্ধতিতে খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ফাইনালের ৬০ মিনিটের খেলা গোল শূন্যে শেষ হয়। পরে ট্রাইবেকারেও ভবানিপুর ইউনিয়ন ও দৌলতখান পৌরসভা ২-২ গোলে ড্র করে। পুনরায় টাইব্রেকারে ভবানিপুর ১-০ গোলে পৌরসভাকে পরাজিত করে বিজয়ী হয়।
 
সাংসদ প্রথমার্ধ শেষ হলে মঞ্চ ত্যাগ করেন। পরে দৌলতখান উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা বিজয়ী দলের সদস্যদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। টুর্নামেন্টে সেরা গোলদাতা হয়েছেন আকতার হোসেন। পাশাপাশি ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট আসাদ হোসেন এবং মেন অব দ্য ম্যাচ মো. খালেদ।
 
এ অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিতেন্দ্র কুমার নাথ, পৌর মেয়র জাকির হোসেন তালুকদার, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মনজুর আলম খান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বাবুল চৌধুরি প্রমুখ।


মন্তব্য