kalerkantho


বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে ২৪ ঘণ্টা কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

১৯ আগস্ট, ২০১৮ ০০:৩৮



বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে ২৪ ঘণ্টা কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি: কালের কণ্ঠ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষে গণতন্ত্রের বঙ্গকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে ২৪ ঘণ্টা কাজ করে যাচ্ছেন। ‘৭৫-এর পর ২০ বছর লেগেছে এ বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নে ফিরিয়ে আনতে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গঠনের পেছনে বঙ্গকন্যা আলোকিত বাংলাদেশ গড়তে যাচ্ছে। সে লক্ষে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আগামী বছর প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেব। আগামী সেপ্টেম্বর মাসে আমরা দেশের জনগণকে জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে ২০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উপহার দেব। 

গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ইকুরিয়া বিআরটিএ অফিস মাঠে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু এ কথা বলেন। মন্ত্রী আরো বলেন, স্বাধীনতার চেতনা ও আওয়ামী লীগ সরকারকে রক্ষা করতে পুলিশ এগিয়ে এসেছে। এর আগে বঙ্গবন্ধুর জন্য পুলিশ অত্মত্যাগ করেছে। বর্তমানে পুলিশ সরকার ও দেশ নিরাপত্তার জন্য বিরতিহীন কাজ করছে। স্বাধীনতা যুদ্ধে প্রথম হামলা হয়েছিল পুলিশের ওপর। স্বাধীনতার পূর্বে যে সকল পুলিশ দেশের জন্য নিরলসভাবে কাজ করেছে তাদের স্মরণ না করলেই নয়। এদের মধ্যে তৎকালীন আইজিপি আব্দুল খালেক, তৎকালীন রাজশাহী রেঞ্জের ডিইজি মামুনুর রশীদ ও রহিম শেখ উল্লেখযোগ্য। 

মন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমানের কথা বলতে গিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধু ২৫ মার্চ রাতে কেরানীগঞ্জে এসে যুদ্ধের পরিকল্পনা করবেন। মুক্তিযুদ্ধোর চেতনা কেরানীগঞ্জই। বিএনপি-জামায়েত চক্র যতই ষড়যন্ত্র-চিন্তা ভাবনা করুক না কেন আমাদের পুলিশ বাহিনী আছে। মন্ত্রী কেরানীগঞ্জবাসীর উদ্দেশে বলেন, আগামী একাদশ নির্বাচনে নৌকার ছায়া তলে এসে শেখ হাসিনার প্রতি ভালোবাসা দেখিয়ে ভোটের মাধ্যমে আবার ক্ষমতায় আনবে। আগামীতে কেরানীগঞ্জের উন্নয়নের জন্য আট হাজার কোটি টাকা ব্যয়ের পরিকল্পনা রয়েছে শেখ হাসিনার। মন্ত্রী নতুনদের উদ্দেশে বলেন, যারা নতুন ভোটার হয়েছে তাদের কাছে যেতে হবে। তাদের বঙ্গবন্ধুর সম্পর্কে বলতে হবে, তাদের মুক্তিযুদ্ধের কথা বলতে হবে, তাদের স্বাধীনতার কথা বলতে হবে তাহলেই আমরা আগামীতে একটি ভালো জাতি পাব।

ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান সাফিউর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পুলিশের ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ-আল-মামুন ও কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ আহবায়ক শাহীন আহমেদ। 

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- ঢাকা জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মাসুম ভুইয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কেরানীগঞ্জ সার্কেল রামানন্দ সরকার, কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহে এলিদ মইনুল আমিন, ইজনজিরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাজি সাকুর হোসেন সাকু, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী স্মৃতি কনা বিশ্বাস, ওসি দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ মো. মনিরুল ইসলাম, ওসি কেরানীগঞ্জ মডেল শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের, ওসি ঢাকা জেলা দক্ষিণ গোয়েন্দা মো. শাহজামান প্রমুখ।



মন্তব্য