kalerkantho


বঙ্গবন্ধুর ভাষণ নিয়ে মারধরের ঘটনায় উখিয়ার সেই শিক্ষক বহিষ্কার

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার   

১৮ আগস্ট, ২০১৮ ২৩:১২



বঙ্গবন্ধুর ভাষণ নিয়ে মারধরের ঘটনায় উখিয়ার সেই শিক্ষক বহিষ্কার

জাতীয় শোক দিবসে মাইকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ভাষণ বাজানোর ঘটনায় কক্সবাজারের উখিয়ার সেই মাদরাসা শিক্ষককে আজ শনিবার সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ছাড়াও বিষয়টি নিয়ে একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

গতকালের কালের কণ্ঠের অনলাইনে ‘উখিয়ায় মাদরাসায় বঙ্গবন্ধুর ভাষণ নিয়ে ছাত্রকে মারধর শিক্ষকের’ শিরোনামে সংবাদটি প্রকাশিত হয়।

মিয়ানমার সীমান্তবর্তী উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের ফাঁড়ির বিল এম কিউ আলীম মাদরাসায় গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের দিন এ ঘটনা ঘটে। মাদরাসাটিতে এদিন সকালে যথারীতি জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে মাইক নেওয়া হয়।

মাইকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণ প্রচার করা হলে একই মাদরাসার শিক্ষক হাফেজ হোসাইন মোহাম্মদ জুলু গিয়ে বাঁধা প্রদান করেন। কিছুক্ষণ পর পুনরায় মাইকে জাতির জনকের ভাষণ বাজানো হলে একই শিক্ষক গিয়ে মাইক বাজানোর দায়িত্বে থাকা ছেলেটিকে মারধর করেন। এমনকি এক পর্যায়ে ওই ছেলের হাতে থাকা মোবাইল সেটটি নিয়ে আঁছড়ে ভেঙ্গে দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে মাদরাসাটির অধ্যক্ষ মওলানা জমির উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘আজ মাদরাসা পরিচালনা কমিটির অনুষ্ঠিত সভায় শিক্ষককে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। ওই শিক্ষক ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং এজন্য তিনি অনুতপ্ত বলেও জানান।’

মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় পালংখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এম, এ মঞ্জুর জানান, ঘটনার ব্যাপারে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির প্রধান হচ্ছেন মাদরাসা পরিচালনা কমিটির শিক্ষানুরাগী সদস্য শাহাদত হোসেন জুয়েল। সভার সিদ্ধান্ত উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)র নিকট পাঠানো হয়েছে।



মন্তব্য