kalerkantho


দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ১১, গ্রেপ্তার ১

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পাবনা    

১৭ আগস্ট, ২০১৮ ১৭:৪৯



দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ১১, গ্রেপ্তার ১

পাবনার বেড়া পৌর এলাকার বৃশালিখা মহল্লায় বাড়ির সীমানা নির্ধারণ ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে  দুপক্ষে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ১১ জন গুরুতর আহত হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।

আহতদের বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত মজিবর নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানা যায়, বেড়া পৌর এলাকার বৃশালিখা মহল্লার মকরম ফকির ওরফে চৈতে ফকিরের ছেলেদের সঙ্গে একই মহল্লার রাজা ও বাদশা মোল্লার বাড়ির সীমানা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে আজ শুক্রবার (১৭আগস্ট) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে চৈতে ফকির তার ছেলেদের নিয়ে রাজা মোল্লার বাড়ির জায়গা দখল করে টিনের বেড়া দিচ্ছিলেন।

রাজা মোল্লার বাড়ির লোকজন এতে বাঁধা দিলে উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় চৈতে ফকির, তার ছেলে রওশন ফকির, মজিবর, মতিউর রহমান ভোলা, সাহেব আলী, নায়েব আলী, আদুরী খাতুন ধারালো দা, শাবল, লাঠিসোঁটা নিয়ে রাজা মোল্লার বাড়িতে হামলা করে বাড়ির লোকজনকে মারপিট, ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। হামলাকারীরা সোনার গহনা, নগদ টাকা লুট করে। রাজা মোল্লার বাড়ির লোকজনের চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এলে হামরাকারীরা পালিয়ে যায়।

সংঘর্ষে আহতরা রাজা মোল্লা (৭২), বাদশা মোল্লা (৭০), রুবেল (৩০), জাহেরা বেগম (৬৫), শাহীন (৪৫), নাজমা (৩৫), হাবিবুর রহমান জীবন (৩৩), সাবনিা খাতুন (২২) এবং বিউটি খাতুন (৩২)। এ ছাড়া  হামলাকারী আদুরী (৩৫) ও চৈতে ফকির (৮০) নামের দুইজন আহত হয়েছেন। আহতদের বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা.  মিলন বলেন, আহত কয়েকজনের অবস্থা বেশ গুরুতর।

বেড়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাফফর হোসেন ঘটনা সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে  আনে। পুলিশ ঘটনায় জড়িত মজিবর নামের একজনকে আটক করেছে। এ ব্যাপারে বেড়া থানায় একটি মামলা হয়েছে। আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।   



মন্তব্য