kalerkantho


নাটোরে শোক দিবসের অনুষ্ঠানে পৃথক সংঘর্ষে আহত ১৭

নাটোর প্রতিনিধি   

১৬ আগস্ট, ২০১৮ ০০:৪২



নাটোরে শোক দিবসের অনুষ্ঠানে পৃথক সংঘর্ষে আহত ১৭

নাটোরের বড়াইগ্রামে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত শোক সভায় অংশগ্রহণ করতে আসা নেতাকর্মীদের ওপর দলীয় প্রতিপক্ষের হামলায় কমপক্ষে ১০ জন আহত ও ১০টি মোটরসাইকেল ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

আওয়ামী লীগ দলীয় এবং প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, বুধবার বিকালে বড়াইগ্রাম পৌরসভা চত্বরে পৌর যুবলীগের উদ্যোগে শোক সভার আয়োজন করা হয়। সভায় উপজেলা চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

এ শোকসভায় যোগদানের জন্য জোনাইল ও চান্দাই ইউনিয়ন থেকে নেতাকর্মীরা মোটরসাইকেল শোডাউন নিয়ে উপজেলার রোলভা এলাকায় আসলে অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস এমপি সমর্থিত সাইফুল ইসলাম মেম্বারের নেতৃত্বে ১৫-২০ জন যুবক লোহার রড, হাতুড়ি ও লাঠিসোটা নিয়ে তাদের ওপর হামলা করে।

এ ঘটনায় চান্দাই ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান জিন্নাহ, চান্দাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম ইন্তাজ, জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আযাদ, সহ-সভাপতি মাহতাব উদ্দিন মাস্টার, আওয়ামী লীগ কর্মী নজু খাঁ, ইসরাইল হোসেন, মেহেদী হাসান, মমিন আলী, ফরহাদ হোসেন, যুবলীগ নেতা মিন্টু আহত হন। পরে আহতদের মধ্যে সাতজনকে বড়াইগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বড়াইগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী অভিযোগ করেন, এমপি কুদ্দুসসের পত্যক্ষ নির্দেশে সাইফুল বাহিনী এই হামলা চালিয়েছে।

এ বিষয়ে সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দসের মোবাইল নম্বরে ফোন দিলে তার ব্যক্তিগত সহকারী মোহাম্মাদ ইব্রাহীম ফোন রিসিভ করে বলেন, স্যার এখন ব্যস্ত আছেন। হামলার বিষয়ে তিনি বলেন, সেখানে কুদ্দুস সমর্থকদের কোনো হামলার ঘটনা ঘটেনি। ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম হামলার দায় অস্বীকার করে বলেন, কারা হামলা করেছে তা তিনি জানেন না।

বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলিপ কুমার দাস ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ৫টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়েছে।



মন্তব্য