kalerkantho


তাড়াশে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, হত্যার অভিযোগ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ আগস্ট, ২০১৮ ১২:৪৫



তাড়াশে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, হত্যার অভিযোগ

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে এক গৃহবধূকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নিহতের নাম মুর্শিদা খাতুন (২৫)। মুর্শিদা খাতুন ওই গ্রামের আব্দুর রশিদের মেয়ে ও একই গ্রামের সাইদুর রহমানের স্ত্রী। সাইদুর রহমান মাদকাসক্ত ছিলেন এবং তিনিই তাকে হত্যা করেছেন বলে জানা গেছে। আজ শনিবার সকালে উপজেলার মাগুরা বিনোদ ইউনিয়নের ঘড়গ্রাম এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। পরিবারের পক্ষ থেকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার অভিযোগ করা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে নিশ্চিত এটা হওয়া যাবে। ঘটনার পর থেকে ওই গৃহবধূর স্বামী পলাতক রয়েছে। সে মাদক সেবন করতো বলেও জানান ওসি।

নিহতের স্বজনেরা জানান, শুক্রবার গভীর রাতে হঠাৎ মুর্শিদার মৃত্যুর খবর শুনেন তারা। ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখেন এলোমেলো বিছানায় মুর্শিদার মরদেহ পড়ে আছে। এছাড়া যে খাটে তার মরদেহ ছিল সেটির একপাশের পায়াও ভাঙা দেখা যায়। ওইসময় বাড়িতে তার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন কেউ ছিল না। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

নিহত গৃহবধূর বাবা আব্দুর রশিদ অভিযোগ করে জানান, ৭ বছর আগে সাইদুর রহমানের সঙ্গে তার মেয়ে মুর্শিদার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে জানা যায় সাইদুর মাদকাসক্ত। নেশা করার কারণে বেশ কয়েকবার মুর্শিদা রাগ করে বাবার বাড়িতে চলে আসে। শুক্রবার রাতেও সাইদুর নেশা করে বাড়ি ফিরলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে তাকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায় সাইদুর।

 



মন্তব্য