kalerkantho


ভাণ্ডারিয়ায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা, তিনজন আহত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ জুলাই, ২০১৮ ২৩:৩৭



ভাণ্ডারিয়ায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা, তিনজন আহত

ছবি: কালের কণ্ঠ

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া কিশোর-কিশোরী সম্মেলন ও প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে এসে হামলার শিকার হয়েছে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। আজ সোমবার দুপুরে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে শহরের বিহারী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় উপজেলার তেলিখালি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক মিজানুর রহমান মামুন, শিক্ষার্থী মারিয়া ইসলাম দিবা ও রিফাত হোসেন আহত হন। আহত শিক্ষক ও দুই শিক্ষার্থীকে ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরে আহত শিক্ষার্থী রিফাত হোসেনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত শিক্ষার্থী মারিয়া ইসলাম দিবা জানায়, বেসরকারি সংস্থা রিসোর্স ইন্টিগ্রেসন সেন্টার (রিক)-এর আয়োজনে কিশোর-কিশোরী সম্মেলন ও প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে স্কুলের শিক্ষকদের সঙ্গে শিক্ষার্থীরা আজ সোমবার দুপুরে বিহারী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের উপস্থিত হয়। সেখানে শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। এ সময় বিহারী স্কুলের ছাত্র মো. এমাদ এর সঙ্গে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে তেলিখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হঠাৎ করে বিহারী পাইলট স্কুলের কয়েক শিক্ষার্থী প্রতিযোগিতা চলাকালে মিলনায়তনের জানালা দিয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে অনুষ্ঠানস্থলে ভীতিকর অবস্থার সৃষ্টি হয়।

অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যান আতিকুল ইসলাম এবং ইউএনও শাহীন আক্তার সুমীর উপস্থিত ছিলেন। তারা তাৎক্ষণিক হামলাকারী শিক্ষার্থীদের নিবৃত্ত করে। পরে অনুষ্ঠান শেষে উপজেলা চেয়ারম্যান শিক্ষার্থীদের পোনা নদীর সেতু পর্যন্ত এগিয়ে দেন। এ সময় ওই হামলাকারী শিক্ষার্থীরা তাদের পিছু নেয়। উপজেলা চেয়ারম্যান সেতুর কাছে শিক্ষক ও  শিক্ষার্থী পৌঁছে দিয়ে চলে আসার পর বিহারী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৪/১৫ শিক্ষার্থী সেতুর শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের আটকে দ্বিতীয় দফা হামলা চালিয়ে আহত করে শিক্ষকসহ তিনজন শিক্ষার্থীকে আহত করে। পরে স্থানীয় আহত তিনজনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

খবর পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আতিকুল ইসলাম উজ্জল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহীন আক্তার সুমী হামলার পর পরই আহতদের হাসপাতালে দেখতে যান। এ ঘটনায় মামলা প্রস্তুতি চলছে।

বিহারী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শশাঙ্ক শেখর চক্রবর্তী জানান, হামলার ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। হামলায় অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

এ বিষয়ে ভাণ্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আতিকুল ইসলাম উজ্জল হামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি দু:খজনক। তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে কয়েকজন শিক্ষার্থী নিজ বিদ্যালয়ে বসে অন্য একটি বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মারধর করেছে। এ ঘটনায় স্কুল কর্তৃপক্ষককে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। 



মন্তব্য