kalerkantho


ফরিদপুরে দুই দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

২১ জুলাই, ২০১৮ ১০:২৮



ফরিদপুরে দুই দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব শুরু

অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে তরুণসমাজসহ সর্বস্তরের জনগণের মধ্যে সাংস্কৃতিক জাগরণ সৃষ্টি তথা দেশজ সংস্কৃতিধারণ, লালন ও সম্প্রসারণে ফরিদপুরে শুরু হয়েছে দুই দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব।

গত শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে ফরিদপুরের কবি জসীমউদ্দীন হলে প্রধান অতিথি হিসেবে এ উৎসবের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

প্রধান অতিথি বলেন, একটি জাতির মূল পরিচয় তার সংস্কৃতিতে। সংস্কৃতি দীর্ঘদিনের চলমান ধারা। রাতারাতি সংস্কৃতির জন্ম হয় না। একটি অঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের আচার-আচরণ অভ্যাস, চিন্তা ও ভাবনার সমন্বয়ে গড়ে ওঠে তার নিজস্ব সংস্কৃতি।

মন্ত্রী বলেন, সংস্কৃতি আমাদের বাঁচিয়ে রাখে। যে গান শুনতে ভালোবাসে না। সে মানুষ খুন করতে পারে। আমাদের আনন্দ ও মুক্তির সোপান রয়েছে দেশের সংস্কৃতিতে। 

সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ও শিল্পকলা একাডেমির সহযোগিতায় দুইদিনের এ সাংস্কৃতিক উৎসবের আয়োজন করা হয়।

এ উৎসবে ফরিদপুরশহরসহ নয়টি উপজেলার পর্যায়ের শিল্পী, কবি ও সাহিত্যিকদের অংশগ্রহণ করছেন। উৎসবে রবীন্দ্র সঙ্গীত, নজরুল সঙ্গীত, আধুনিক ও দেশাত্মবোধক গান, কবিতা আবৃত্তি, একক অভিনয়, পল্লী গীতি, লালনগীতি, লোকগীতি, জারি, সারি, মুর্শিদী গান ছাড়াও সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে গান পরিবেশন করা হবে।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন পুলিশসুপার মো. জাকির হোসেন খান, সদও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যাস খন্দকার মোহতেসাম হোসেনবাবর, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা প্রমুখ।

এর আগে জেলা ব্রান্ডিং বিষয়কন বই এর মোড়ক উন্মোচন করেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, পাটকে ফরিদপুরের ব্র্যান্ডিং করা হয়েছে। পানির অভাবে পাটের রঙ ভালো হচ্ছে না। তিনি বলেন, আগামীতে কুমার নদ খননের সাথে সাথে সমস্ত খাল খননের উদ্যোগ নেওয়া হবে যাতে পাট জাগ দিতে কৃষকদের কোনো সমস্যায় পড়তে না হয়।



মন্তব্য