kalerkantho


জমি আত্মসাৎ মামলায়

কুমিল্লা উপজেলা চেয়ারম্যান ঢাকায় গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

১৯ জুলাই, ২০১৮ ০০:২৪



কুমিল্লা উপজেলা চেয়ারম্যান ঢাকায় গ্রেপ্তার

কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা মো. রুহুল আমিনকে ঢাকার আশুলিয়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি পুলিশ। জাল দলিল সম্পাদন ও প্রতারণার মাধ্যমে সাড়ে ৪ বিঘা সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ঢাকা সিআইডি অর্গানাইজড ক্রাইমের সিরিয়াস শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) জহিরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার সকালে ঢাকা সিআইডি অর্গানাইজড ক্রাইমের সিরিয়াস স্কোয়াড শাখার একটি টিম বিশেষ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্লাহ বিপিএম এর নেতৃত্বে ঢাকার শান্তিনগরে তার নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেন। মো. রুহুল আমিন কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার পদুয়া গ্রামের মৃত. মোহাম্মদ আলী মাস্টারের পুত্র এবং দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান।

জানা যায়, চলতি বছরের ২৮ এপ্রিল আশুলিয়া এলাকার বাসিন্দা আব্দুল হাকিম আশুলিয়া এ্যসিল্যান্ড অফিস থেকে নোটিশ প্রাপ্তির মাধ্যমে জানতে পারেন যে, জনৈক রুহুল আমিন আশুলিয়া পূর্বনরসিংহ পুর মৌজার ১৩৭.৫০ শতাংশ জমি (সাড়ে ৪ বিঘা) নামজারি/ জমা খারিজের জন্য আবেদন করেছেন। জমির মালিক পরবর্তীতে এ্যসিল্যান্ড অফিসে যোগাযোগ করলে জানতে পারেন যে, জনৈক রুহুল আমিন চারটি জাল দলিল তৈরী করে উক্ত সাড়ে ৪বিঘা সম্পত্তির মালিকানা দাবি করছেন। 

বিষয়টি অবগত হয়ে তিনি গত ২৫ মে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটির তদন্তভার সিআইডি গ্রহণ করার পর সিআইডি অর্গানাইজড ক্রাইমের সিরিয়াস স্কোয়াড শাখার একটি টিম বিশেষ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্লাহ, বিপিএম এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে বুধবার মূল আসামি রুহুল আমিনকে গ্রেপ্তার করেন।

সিআইডি পুলিশ জানায়, সম্প্রতি আশুলিয়া পূর্বনরসিংহ মৌজার সাড়ে ৪ বিঘা জমি নকল দাতা সাজিয়ে ৪টি দলিলের মাধ্যমে নিজ নামে সম্পাদন করেন তিনি। যে জমি সরকারি সাব-রেজিস্ট্রি বিভাগের মূল্য তালিকানুযায়ী প্রায় ১১ কোটি টাকা। স্থানীয়দের ধারনা ওই জমির বর্তমান বাজার মূল্য শত কোটি টাকা হবে।



মন্তব্য