kalerkantho


ফরিদপুরে জাল সনদে শিক্ষকতার চাকরি

দুদকের মামলায় সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

১৭ জুলাই, ২০১৮ ১৯:৫৯



ফরিদপুরে জাল সনদে শিক্ষকতার চাকরি

ফরিদপুরে জাল সনদে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতার চাকরি করার দায়ে মো. সুলতান হোসেন(৩৭) নামে এক ব্যক্তিকে সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড দিয়েছেন ফরিদপুর বিশেষ জজ আদালত। দুর্নীতি দমন কমিশনের দায়ের করা মামলায় মোট তিনটি ধারায় এ দণ্ড প্রদান করা হয়। এ ছাড়া আরো দুটি ধারায় পৃথক কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ফরিদপুর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. মতিয়ার রহমান এ রায় ঘোষণা করেন। আসামি সুলতান হোসেন বর্তমানে চাকরিচ্যুত ও পলাতক রয়েছেন।

দুদক, ফরিদপুর কোর্ট পরিদর্শক বজলুর রহমান জানান, আসামি মো. সুলতান হোসেন শরীয়তপুর জেলার ২০ নম্বর পূর্বকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পিটিআইয়ের জাল সনদ দিয়ে ১৯৮৪ সালে অবৈধভাবে চাকরি নেন। তিনি ১৯৮৪ সালের আট জুলাই থেকে ১৯৯৪ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সরকারি কর্মচারীর বেতন-ভাতাদি হিসেবে দুই লাখ ৪৩ হাজার ৫৭৪ টাকা আত্মসাৎ করেন। এ ব্যাপারে দুদুক মামলা করলে সুলতানকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

তিনি বলেন, আদালত ওই ব্যক্তিকে দণ্ডবিধির ৪০৯ ধারায় (সরকারি অর্থ আত্মসাৎ) মামলায় পাঁচ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড করেছেন। অনাদায়ে আরো তিন মাসের কারাদণ্ড দেন।

এ ছাড়া ৪৭১ ধারায় (জাল সনদ দিয়ে জালিয়াতি) তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং  দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও দশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন। আটক হওয়ার পর থেকে তার সাজা কার্যকর শুরু হবে।



মন্তব্য