kalerkantho


লাশবাহক চায়না নেই, পড়ে আছে তাঁর ভ্যান

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি   

১৭ জুলাই, ২০১৮ ১৯:২০



লাশবাহক চায়না নেই, পড়ে আছে তাঁর ভ্যান

এভাবে লাশবাহী ভ্যান ধরে আর দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যাবে না হাদিস ওরফে চায়নাকে।

লাশবাহক হাদিস ওরফে চায়না (৫৪) আর নেই। কিন্তু সৈয়দপুর থানা চত্বরে পড়ে আছে লাশ বহনকারী তাঁর রিকশাভ্যানটি। আর কখনো, কোনোদিন, কারো লাশ বহন করবেন না তিনি। কারণ নিজেই লাশ হয়ে সে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। 

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার দুপুরে নীলফামারীর সৈয়দপুর থানা চত্বরের একটি কাঠবেল গাছ থেকে পড়ে গুরুতর আহত হয় চায়না। প্রথমে তাকে নেওয়া হয় সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসাপতালে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল রেফার্ড করা হয়।

সৈয়দপুর পৌর এলাকার গোলাহাট সিনেমা হল নতুন ক্যাম্পের বাসিন্দা হাদিস ওরফে চায়না। জীবন জীবিকার তাগিদেই বিচিত্র পেশায় জড়িয়ে পড়ে। হয়ে উঠে সে অস্বাভাবিক মৃত ব্যক্তির লাশবাহক। পুলিশের ডাক পাওয়া মাত্রই ঝড় বৃষ্টিসহ প্রাকৃতিক দুর্যোগ উপেক্ষা করে ছুটে আসতেন থানায়। ঠিকানা নিয়ে চলে যেতেন নির্দিষ্ট স্থানে। হোক না, পঁচা বা দুর্গন্ধময় লাশ। লাশ বহনের এ পেশায় দীর্ঘ দুই যুগের বেশি সময় ছিল সে। কিন্তু এবার নিজেই লাশ হয়ে ওই পেশা থেকে ইতি টানলো। এখন সে আর লাশ বহন করবে না। কেউ আর ডাকবে না তাকে।

গত সোমবার দুপুরে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার। ওই দিন রাতেই শহরের গোলাহাট সিনেমা হল নতুন ক্যাম্পের মসজিদ বায়তুল মেরাজে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে গোলাহাট কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয় তার। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ পুত্র, ৩ কন্যা সন্তান, আত্মীয় স্বজনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

এদিকে, চায়নার মৃত্যু সংবাদ বিভিন্ন শিরোনামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এতে সৈয়দপুর থানায় দায়িত্ব পালন করেছেন, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কর্মরত আছেন, চায়নাকে চেনেন এমন পুলিশ অফিসাররা চায়নার সেবামূলক কাজের প্রশংসা করে নিজেদের অভিমত প্রকাশ করেন। অনেকে কর্মকর্তা আবার আর্থিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। 

আজ মঙ্গলবার সকালে সৈয়দপুর থানা চত্বরের গিয়ে দেখা যায় লাশবহনকারী চায়নার রিকশাভ্যানটি যথাস্থানে পড়ে আছে। নেই শুধু রিকশাভ্যানটি চালক লাশবাহক হাদিস ওরফে চায়না!



মন্তব্য