kalerkantho


কালীগঞ্জে বিদ্যুতের নির্বাহী প্রকৌশলীসহ বরখাস্ত ৩

লালমনিরহাট প্রতিনিধি   

১৭ জুলাই, ২০১৮ ০২:৩০



কালীগঞ্জে বিদ্যুতের নির্বাহী প্রকৌশলীসহ বরখাস্ত ৩

লালমনিরহাটে বিদ্যুৎ ব্যবহার না করেও ৪৩ জনের নামে প্রায় দুই লাখ টাকার ভুয়া বিল পাঠানোর ঘটনায় বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (নেসকো) নির্বাহী প্রকৌশলীসহ তিনজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

সোমবার নেসকো রাজশাহী আঞ্চলিক অফিসের এক আদেশে তাদের বরখাস্ত করা হয়। সেই সাথে ওই ৪৩ জনের নামে দেওয়া বিল প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

বরখাস্তকৃতরা হলেন, কালীগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহানুর রহমান, সহকারী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম ও মিটার রিডার সাইফুল ইসলাম।

নেসকো ও স্থানীয় সূত্র মতে, লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার মহিষাশহর এলাকার ৩৩ পরিবারকে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার জন্য বছর তিনেক আগে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কালীগঞ্জ অফিসের মিটার রিডার সাইফুল ইসলাম প্রত্যেকের কাছ থেকে ১২হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকা নেন। কিন্তু তিন বছর পরেও বিদ্যুৎহীন গ্রামটিতে বসানো হয়নি খুঁটি, বাড়িতে পৌঁছেনি বিদ্যুৎ। অথচ গত মাসে গ্রামের মোট ৪৩ জনের নামে জনপ্রতি পাঁচ হাজার ৯৩ টাকা হারে দুই লাখ ১৮ হাজার ৯৯৯ টাকার বিদ্যুৎ বিল পাঠায় বিদ্যুৎ বিদ্যু বিভাগ।

বিষয়টি জানতে পেরে লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ আদিতমারীর ইউএনওকে বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিলে তদন্তে উঠে আসে ঘটনার সত্যতা। পরবর্তিতে গত রবিবার অনুষ্ঠিত জেলা সমন্বয় কমিটির সভায় ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রতিবেদন দাখিল করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করে জেলা সমন্বয় কমিটি। এরই প্রেক্ষিতে নেসকো রাজশাহী অঞ্চলিক কার্যালয় ওই নির্দেশ দিয়েছে।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (নেসকো) রংপুর বিভাগীয় তত্ববধায়ক গোলাম মর্তুজা তিনজনকে বরখাস্তের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ভুক্তভোগী ৪৩ জনকে এসব ভুয়া বিল আর পরিশোধ করতে হবে না।



মন্তব্য