kalerkantho


সৈয়দপুরে অটোবি'র মিস্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি    

১৫ জুলাই, ২০১৮ ১৬:৩১



সৈয়দপুরে অটোবি'র মিস্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরে অটোবি ফার্নিচারের এক মিস্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের নাম শাহাজাদা (৩৫)।

আজ রবিবার সকালে শহরের কাজীরহাট পানির ট্যাংকির পেছনে এলাকার ভাড়া বাড়ির নিজ ঘর থেকে উদ্ধারের পর তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান তিনি। তবে কারা কি উদ্দেশ্যে তাকে হত্যা করেছে তা জানা যায়নি। 

নিহত শাহাজাদা শহরের বাঁশবাড়ী টালী মসজিদ এলাকার মো. নবাবের বড় ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, শহরের উপকণ্ঠ চিকলী কুজিপুকুর এলাকায় অবস্থিত তৌকির এন্টারপ্রাইজ নামের অটোবি ফার্নিচারের কারখানায় মিস্ত্রী হিসেবে কাজ করতেন শাহাজাদা। কারখানার মালিক শহরের জনৈক হাজি তানভির আহমদে। ওই কারখানা  মালিকের কাজীরহাট বাড়িতে ভাড়ায় থাকতেন শাহজাদা।

ঘটনার দিন বাড়িতে একাই ছিলেন শাহাজাদা। আজ রবিবার সকালে প্রতিবেশীরা ওই বাড়ির ঘরে গলাকাটা নগ্ন অবস্থায় উপুড় হয়ে পড়ে থাকা আহত অবস্থায় শাহাজাদাকে দেখতে পান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে শাহজাদাকে উদ্ধার করে। পরে তাকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান তিনি।

শাহাজাদাকে উদ্ধারকারী সৈয়দপুর থানার এসআই মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে শাহাজাদার মৃত্যু হয়েছে। ঘটনার পরপরই তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া গেলে তাকে বাঁচানো যেত।

নিহত শাহাজাদার স্ত্রী জয়নব আজ দুপুরে সৈয়দপুর থানায় বসে জানান, তার ননদ বেলীর বিয়ে উপলক্ষে তিনি (জয়নব) দুই সন্তানকে নিয়ে গত এক সপ্তাহ আগে থেকে শহরের বাঁশবাড়ীর টালি মসজিদ এলাকায় শ্বশুর বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। তার স্বামী গত শনিবার সন্ধ্যার ঠিক আগ মুর্হুতে ওই বাড়ি থেকে বের হন। তারপর তার সঙ্গে আর কোন কথা হয়নি। সকালে স্বামীকে খুন করার ঘটনা জানতে পেরে ছুটে আসেন তিনি।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহজাহান পাশা বলেন, 'লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তাকে উপর্যুপরি আঘাতের পর গলা কেটে ফেলে রেখে যায় দুবৃর্ত্তরা। তবে কারা, কি কারণে তাকে হত্যা করেছে তা জানা যায়নি। হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ধারে কাজ করছে পুলিশ।'  

 



মন্তব্য