kalerkantho


শিডিউল বিপর্যয়ে পার্বতীপুরের তিন আন্তঃনগর ট্রেনে ভোগান্তি

আবদুল কাদির, পার্বতীপুর (দিনাজপুর)   

২৩ জুন, ২০১৮ ১৬:৫২



শিডিউল বিপর্যয়ে পার্বতীপুরের তিন আন্তঃনগর ট্রেনে ভোগান্তি

পার্বতীপুর-ঢাকার মধ্যে চলাচলকারী তিনটি আন্তঃনগর যাত্রীবাহী ট্রেনের সব কয়টির শিডিউল বিপর্যয় ঘটেছে। ফলে ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফেরা যাত্রীদের বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে।

রেল সূত্র জানায়, পার্বতীপুর-ঢাকার মধ্যে চলাচলকারী আন্তঃনগর তিনটি ট্রেন হচ্ছে, ৭৬৫ আপ/৭৬৬ ডাউন নীলসাগর যাত্রীবাহী ট্রেন, ৭৫৭ আপ/৭৫৮ ডাউন যাত্রীবাহী দ্রুতযান ট্রেন ও ৭০৫ আপ/৭০৬ ডাউন একতা যাত্রীবাহী আন্তঃনগর ট্রেন।

এর মধ্যে আন্তঃনগর নীলসাগর ট্রেন চলাচল করে চিলাহাটি-পার্বতীপুর-ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশনের মধ্যে। অপর দু’টি আন্তঃনগর ট্রেন যাতায়াত করে দিনাজপুর-পার্বতীপুর ও ঢাকার মধ্যে।

স্থানীয় রেল সূত্রে জানা যায়, নীলসাগর আন্তঃনগর ট্রেন চিলাহাটি থেকে পার্বতীপুর এসে ঢাকা অভিমুখে ছেড়ে যাওয়ার নির্ধারিত সময় ছিল গত শুক্রবার রাত ১১টা ১০মিনিট। ট্রেনটি নয় ঘন্টা ১৫মিনিট বিলম্বে শনিবার পার্বতীপুর রেল স্টেশন ত্যাগ করে ঢাকা অভিমুখে ছেড়ে যায়।

একইভাবে আন্তঃনগর দ্রুতযান ট্রেন দিনাজপুর থেকে পার্বতীপুর রেল স্টেশনে এসে পৌঁছে ঢাকা অভিমুখে ছেড়ে যাওয়ার নির্দিষ্ট সময় ছিল শনিবার সকাল ১০টা ১৫মিনিট। ট্রেনটি তিন ঘন্টা বিলম্বে বেলা ১টা ৫৫মিনিটে পার্বতীপুর থেকে ঢাকা অভিমুখে ছেড়ে যায়। একতা আন্তঃনগর ট্রেন শুক্রবার রাত ১২টার স্থলে প্রায় পাঁচ ঘন্টা বিলম্বে শনিবার ৪টা ৫৫মিনিটে ঢাকা অভিমুখে পার্বতীপুর রেল স্টেশন ত্যাগ করে।

আন্তঃনগর নীলসাগর ট্রেনের যাত্রী আব্দুর রহিম বলেন, সপরিবারে ঈদ করতে এসে চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হয়েছে। এরকম হবে জানলে ঈদে বাড়িতে আসতেন না বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। আন্তঃনগর দ্রুতযান ট্রেনের যাত্রী আবু সুফিয়ান বলেন, ঈদের সব আনন্দ ম্লান হয়ে গেছে কর্মস্থলে ফিরে যাওয়ার এ বিড়ম্বনা ও ভোগান্তির কারণে।

এ ব্যপারে রেলওয়ের পার্বতীপুর স্টেশন মাষ্টার জিয়াউল আহসানের কাছে জানতে চাইলে বলেন, সব ট্রেন ঢাকা থেকে বিলম্বে আসছে। আবার স্টার্টিং পয়েন্ট চিলাহাটি ও দিনাজপুর থেকে বিলম্বে ছেড়ে আসায় পার্বতীপুর রেল স্টেশনে যাত্রীদের বিড়াম্বনা ও ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে বলে তিনি উলে­খ করেন। এদিকে, অপর এক সংবাদে জানা গেছে ঈদ স্পেশাল ট্রেনও তিন ঘন্টার বেশি বিলম্বে পার্বতীপুর-ঢাকার মধ্যে চলাচল করছে।



মন্তব্য