kalerkantho


রাজাকারের পুত বলায় হামলা, আহত ৩

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পিরোজপুর    

২২ জুন, ২০১৮ ২১:৫১



রাজাকারের পুত বলায় হামলা, আহত ৩

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ায় যুদ্ধাপরাধ মামলার আসামির ছেলেকে রাজাকারের পুত বলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে  হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে ধারালো অস্ত্রের কোপে তিনজন গুরুতর জখম হয়েছেন।

এ ঘটনায় নাজমুন নাহার বেগম (৪২) ও হিরা বেগম (২৬) নামের দুই নারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার সকালে উপজেলার পশারিবুনিয়া গ্রামে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

থানা সূত্রে জানা গেছে, সকাল ১১টার দিকে উপজেলার পশারীবুনীয়া গ্রামের যুদ্ধাপরাধ মামলার আসামি নূরুল আমিনের ছেলে স্কুলছাত্র  রিফাতকে তার বাড়ির সামনে বসে রাজকারের পুত বলে গালি দেয় একই গ্রামের ইমরান হোসেন নামে এক ব্যক্তি। রিফাত বাড়িতে গিয়ে তার মা নজমুন নাহার বেগমকে বিষয়টি জানান। পরে মা নাজমুন নাহার বড় ছেলে মিরাজকে সঙ্গে নিয়ে  যুদ্ধাপরাধ মামলার অপর আসামি ফজলুল হকের দুই ছেলে আবদুল আজিজ ও এনামূল কবির, মৃত রাজা আলীর ছেলে আলতাফ হোসেনসহ ৮-১০ জন সংঘবদ্ধ হয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ইমরান হোসেন হাওলাদার (৩৫), তার দুই আত্মীয় আবদুল গফ্ফার (২২) ও হাফিজ মীরকে (৩৫) কুপিয়ে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে ভাণ্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে আব্দুল গাফ্ফারের অবস্থার আরো অবনতি হলে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়।

এদিকে, হামলায় গ্রেপ্তার নাজমুন নাহার দাবি করেন, তার ছেলেকে রাজাকারের পুত বলে গালি দিয়ে  প্রতিপক্ষের লোকজন তার বাড়িঘরে হামলার চেষ্টা চালালে তাদের ওপর পাল্টা হামলা চালানো হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এ হামলার ঘটনার পর স্থানীয় মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের অর্ধশত মানুষ যুদ্ধাপরাধ মামলার আসামি নূরুল আমিন (পলাতক) ও রাজাকার ফজলুল হকের (বর্তমানে জেল হাজতে) বসতবাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করেছে।

ভাণ্ডারিয়া থানার এসআই মো. শহিদুল ইসলাম হামলার ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, যুদ্ধাপরাধ মামলার পলাতক আসামি নূরুল আমিনের ছেলে স্কুলছাত্র রিফাতকে রাজাকারের পুত বলায় তার পরিবারের লোকজন প্রতিপক্ষের ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় আহত হাফিজ মীরের বড় ভাই এস্কান্দার আলী মীর বাদী হয়ে ভাণ্ডারিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে দুই নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান এসআই। 



মন্তব্য