kalerkantho


ডোমারে মাদক কারবারির বাড়িতে অগ্নিসংযোগ

নীলফামারী প্রতিনিধি    

১৪ জুন, ২০১৮ ১৬:২৩



ডোমারে মাদক কারবারির বাড়িতে অগ্নিসংযোগ

নীলফামারীর ডোমারে রূপা বেগম ওরফে সাহিদা বেগম (৩৪) নামের এক মাদক কারবারির বাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী। গতকাল  বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলা শহরের ছোটরাউতা কাজীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

রূপা বেগম ওই গ্রামের মাদক ব্যবসায়ী মিজানুর রহমানের স্ত্রী।

পুলিশ জানায়, মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মাদক কারবারি রূপা বেগমের বিরুদ্ধে ১৫টি এবং তার স্বামী মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে ১৩টি মামলা রয়েছে। মিজানুর রহমান বর্তমানে জেল হাজতে থাকলেও রূপা বেগম আদালত থেকে জামিনে রয়েছেন। এরই মধ্যে মাদকবিরোধী অভিযান শুরু হলে পলাতক রয়েছেন রূপা।

স্থানীয়রা জানায়, মাদক কারবারি রূপা বেগমের ওপর ক্ষিপ্ত মাদকবিরোধী এলাকাবাসী গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে একত্রিত হয়ে রূপার বাড়িতে উপস্থিত হয়। এ সময় রূপাকে না পেয়ে বাড়ি, আসবাবপত্র ভাঙচুর করে অগ্নিসংযোগ করে। অগ্নিকাণ্ডে রূপা বেগমের তিনটি ঘর ও ঘরে রক্ষিত আসবাবপত্র পুড়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ও দমকল বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি শান্ত ও আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, রূপা ও তার স্বামী এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। এর আগে এলাবাসীর কাছে তারা ওই ব্যবসা ছেড়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও তা রক্ষা করেননি। তাদের কর্মকাণ্ডে বিক্ষুব্ধ হয়ে গতকাল বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটায় এলাকার লোকজন।

ডোমার থানার এসআই আরমান আলী বলেন, রূপা ও তার স্বামী মিজানুর রহমান এলাকার কুখ্যাত মাদক কারবারি। রূপা বেগমের বিরুদ্ধে ১৫টি এবং মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে ১৩টি মামলা রয়েছে। মিজানুর রহমান কারাগারে আটক থাকলেও রূপা বেগম জামিন পাওয়ার পর মাদকবিরোধী অভিযান শুরু হলে তিনি  আত্মগোপনে যান।

এসআই আরো বলেন, বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এলাকাবাসী তার বাড়ি ভাঙচুর করে অগ্নিসংযোগ করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে এবং ডোমার দমকল বাহিনীর সদস্যরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। 



মন্তব্য