kalerkantho


শেরপুরে 'বন্দুকযুদ্ধে' যুবক নিহত

শেরপুর প্রতিনিধি    

২৫ মে, ২০১৮ ০৮:২৮



শেরপুরে 'বন্দুকযুদ্ধে' যুবক নিহত

শেরপুরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আজাদ (২৮) নামের এক যুবক নিহত হয়েছে।

পুলিশের দাবি, নিহত আজাদ একজন শীর্ষ সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী। এ ঘটনায় এক এসআই-সহ তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।

নিহত আজাদ ওরফে কালু সদর উপজেলার চরপক্ষীমারী ইউনিয়নের মরাকান্দি খাসপাড়া গ্রামের মৃত মনতাজ আলীর ছেলে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে সদর উপজেলার পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়সংলগ্ন ঘুঘুরাকান্দি সড়কের সাতপাকিয়া নামক স্থানে এ 'বন্দুকযুদ্ধের' ঘটনা ঘটে। 

পুলিশের ভাষ্যমতে, নিহত কালু ডাকাতি ও মাদকসহ বিভিন্ন ধরনের ২১টি মামলার আসামি। আহত এসআই আব্দুল ওয়াদুদ এবং পুলিশ কনস্টেবল গোলাম মোস্তফা ও সাইফুল ইসলামকে শেরপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, গতরাত আড়াইটার দিকে শেরপুর সদর থানা পুলিশের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সদর উপজেলার সাতপাকিয়া গ্রামে মাদক উদ্ধারে অভিযানে যায়। এ সময় সেখানে আগে থেকে ওত পেতে থাকা একদল সন্ত্রাসী পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে আজাদ ওরফে কালু ডাকাত গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। এ সময় সন্ত্রাসীদের আঘাতে এক এসআই-সহ দুই পুলিশ সদস্য আহত হন। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে শেরপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন।

আজাদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শেরপুর জেলা হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

এদিকে, নিহত কালুর স্ত্রী শিউলী বেগম কান্নাজড়িত কণ্ঠে অভিযোগ করে বলেন, পুলিশ তাকে (আজাদ) বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গুলি করে মেরে ফেলেছে। তিনি বলেন, 'গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে কালুকে বাড়ি থেকে ডেনে আনা হয়। ডিবি পুলিশের নামে তাকে ডেকে আনার পর আমরা দুপুরের দিকে ডিবি অফিসে গেলে সেখানে তাকে নেওয়া হয়নি বলে জানানো হয়। পরে সদর থানায় খোঁজ নিতে গেলে তারাও নাই বলে জানান।'  



মন্তব্য