kalerkantho


শিবচরের পদ্মায় নিখোঁজ লঞ্চযাত্রীর লাশ উদ্ধার

মাদারীপুর প্রতিনিধি    

২৪ মে, ২০১৮ ১৬:০১



শিবচরের পদ্মায় নিখোঁজ লঞ্চযাত্রীর লাশ উদ্ধার

মাদারীপুর শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটের পন্টুন থেকে পদ্মায় পড়ে নিখোঁজ লঞ্চ যাত্রী কাজী শহিদুল ইসলামের (৫০) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

বিআইডাব্লিউটিএ'র ডুবুরিদল, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় লাশ উদ্ধার করেছে। শহিদুল ইসলাম বুধবার রাতে ঢাকা থেকে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসে উঠে লঞ্চে পদ্মা নদী পার হয়ে গোপালগঞ্জে যাচ্ছিলেন।

পুলিশ ও বিআইডাব্লিউটিএ কাঁঠালবাড়ি ঘাট সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে শিমুলিয়া ঘাট থেকে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের যাত্রী নিয়ে সাগরপাড় নামের একটি লঞ্চ কাঁঠালবাড়ি ঘাটে আসে। লঞ্চ থেকে নেমে কাজী শহিদুল ইসলাম এক পন্টুন থেকে অন্য পন্টুনে যাচ্ছিলেন। এ সময় পা পিছলে দুই পন্টুনের ফাঁক দিয়ে পানিতে পড়ে নিখোঁজ হন।

এরপর থেকে শিবচর থানা পুলিশের সহযোগিতায় ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে বরিশালের বিআইডাব্লিউটিএ'র ডুবুরিদল অভিযানে যোগ দেয়। তারা তল্লাশি চালিয়ে পন্টুনের নীচ থেকে লাশ উদ্ধার করে।

নিহত শহিদুল ইসলাম গোপালগঞ্জের পাইকের ডাঙ্গা গ্রামের আব্দুল হাকিম কাজীর ছেলে। সে ঢাকা ধানমন্ডির কাজী ফার্মে দীর্ঘদিন ধরে সিকিউরিটি ইনচার্জ পদে কর্মরত ছিলেন।

নিহতের ভাতিজা হাসানুল ইসলাম বলেন, 'রাতে লঞ্চ পারাপার করলেও পন্টুনে পর্যাপ্ত আলোকবাতি না থাকা ও অপরিকল্পিত পন্টুন স্থাপনের কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।'

শিবচর ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার মর্তুজা ফকির বলেন, 'ভোররাত থেকেই ডুবুরিরা উদ্ধার অভিযান শুরু করে। বৃহস্পতিবার সকালে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পন্টুনের ভেতরের দিকে লাশটি ছিল।

বিআইডাব্লিউটিএ'র কাঁঠালবাড়ী লঞ্চঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মো. আক্তার হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, 'নিহত ব্যক্তি এক পন্টুন থেকে পাশের পন্টুনে যাওয়ার সময় অসাবধনতাবশত নদীতে পড়ে গিয়ে মারা যান।' 



মন্তব্য