kalerkantho


শিবগঞ্জে বাড়িতে ডাকাতি করে স্কুলছাত্রীকে হত্যা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ    

২১ মে, ২০১৮ ১৬:১৮



শিবগঞ্জে বাড়িতে ডাকাতি করে স্কুলছাত্রীকে হত্যা

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে বাড়িতে ডাকাতি ও  স্কুলছাত্রীকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ সোমবার ভোরে গলায় ওড়না পেঁচানো স্কুলছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত ওই ছাত্রীর নাম মোসা. শ্যামলী খাতুন। সে  শিবগঞ্জ উপজেলার ছত্রাজিতপুর ইউনিয়নের রশিকনগর-শিরোটোলা গ্রামের কবির হোসেনের মেয়ে ও চণ্ডীপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী।

শিবগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুল ইসলাম বলেন, নিজ বাড়ির একটি ঘরে শ্যামলী, তার মা ও বোন ঘুমিয়ে ছিল। সকালে স্থানীয়রা দেখতে পান বাড়ির মূল দরজা বাড়ির বাইরের দিক থেকে ছিটকানি লাগানো। দরজা খুলে তারা দেখতে পান আসবাবপত্র এলোমেলো অবস্থায় পড়ে রয়েছে। একপর্যায়ে বাড়ির অন্য একটি ঘরে বিছানার ওপর শ্যামলীর গলায় ওড়না পেঁচানো মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন তারা। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ  উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য তা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে পাঠায়। তবে কি কারণে  শ্যামলী মারা গেছে তার সঠিক কারণ জানাতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, বাড়ির পিছন দিক থেকে ভেন্টিলেশন দিয়ে প্রথম রাতে ডাকাতির উদ্দেশ্যে কে বা কারা প্রবেশ করে একঘরে ঘুমিয়ে থাকা তিনজনকে অজ্ঞান করে বাড়ির স্বর্ণালংকারসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়। একপর্যায়ে তিনজনের মধ্যে একজনকে অন্য ঘরে নিয়ে গিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে।

শ্যামলীর মা আলিয়া বেগম বলেন, তারাবি নামাজ পড়ে আমার  দুই মেয়ে শ্যামলী ও চাম্পাকে নিয়ে একই ঘরে ঘুমিয়ে পড়ি, এরপর কিছুই জানি না, কিছুই মনে পড়ছে না। ভোর রাতে সেহেরি খাওয়ার কোনো লক্ষণ না দেখতে পেয়ে প্রতিবেশী ও শাশুড়ি সোহাগী খাতুন ডাকাডাকি করলেও কোনো জ্ঞান না থাকায় উঠতে পারিনি। 

একপর্যায়ে তার ডাকাডাকিতে অন্যরা বাড়িতে এসে দেখতে পায় আমরা অচেতন অবস্থায় এক মেয়েসহ আমি এক ঘরে এবং আরেক ঘরে গলায় ওড়না পেঁচানো হাতবাঁধা নিথর দেহে খাটের ওপর মেয়ে শ্যামলী।

লোকজন পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ আজ সোমবার ভোরে বাড়িতে পৌঁছে মেয়ের লাশ উদ্ধার করে।  



মন্তব্য