kalerkantho


নীলফামারীতে নারী ইপিজেড শ্রমিকের রহস্যজনক মৃত্যু

নীলফামারী প্রতিনিধি   

২০ মে, ২০১৮ ১৮:২০



নীলফামারীতে নারী ইপিজেড শ্রমিকের রহস্যজনক মৃত্যু

নীলফামারীতে উত্তরা ইপিজেডের শ্রমিক বেবী আক্তারের (২৮) রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। আজ রবিবার দুপুরে জেলা সদরের চাপড়াসরমজামী ইউনিয়নের লতিফচাপড়া ঘুঘুটারী গ্রামে স্বামী আতোয়ার রহমানের (৩৫) বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। জানা গেছে, ওই নারীর স্বামী ও পরিবারের সদস্যরা বাড়িতে লাশটি রেখে আত্মগোপন করে।

এলাকাবাসী জানায়, প্রায় আট বছর আগে জেলা সদরের কুন্দপুকুর ইউনিয়নের ফকিরপাড়া গ্রামের বেলাল ওসমানের মেয়ে বেবী আক্তারের সঙ্গে ঘুঘুটারী গ্রামের আতিয়ার রহমারে ছেলে আতোয়ার রহমানের বিয়ে হয়। তাদের পাঁচ বছরের আয়শা সিদ্দিকা নামে এক কন্যা সন্তান রয়েছে। বেবী আক্তার সম্প্রতি উত্তরার ইপিজেডে একটি কম্পানিতে শ্রমিকের কাজে যোগ দেয়। গতকাল শনিবার ইফতারির আগে ইপিজেড থেকে বাড়িতে ফিরে এলে রাত নয়টার দিকে তার মৃত্যুর খবর শোনা যায়। এরপর ওই বাড়িতে গিয়ে বেবী আক্তারের লাশ বিছানায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে। এ সময় তার স্বামী আতোয়ারসহ পরিবারের লোকজনকে পাওয়া যায়নি। আজ রবিবার দুপুরে পুলিশ এসে তার লাশটি উদ্ধার করে।

মেয়ের মৃত্যুর ঘটনায় বেবী আক্তারের বাবা বেলাল ওসমান বলেন, 'শনিবার ইফতারির পর বেবী আক্তার ফোনে আমার ও তার মায়ের সঙ্গে কথা বলেছে। এরপর রাত নয়টার দিকে তার মৃত্যুর খবর পাই। এমন খবরে মেয়ের বাড়িতে এসে দেখি লাশ বিছানায় পড়ে আছে। এ সময় জামাইসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের পাইনি। তাদের বাড়ি ছেড়ে আত্মগোপন করার ঘটনায় মনে হচ্ছে আমার মেয়েকে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার স্বামী আতোয়ারসহ পরিবারের সদস্যরা।'

ওই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. খলিলুর রহমান বলেন, 'তারাবির নামাজের পর খবর পাই বেবী আক্তার গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এরপর ওই বাড়িতে এসে বেবীর লাশ বিছানার ওপরে পড়ে থাকতে দেখি। বাড়ির লোকজনকে না পেয়ে গ্রাম পুলিশকে পাহারা রেখে থানায় খবর দেই। রবিবার দুপুরে পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করে।'

এ ব্যাপারে নীলফামারী সদর থানার উপপরিদর্শক মতিউর রহমান জানান, 'লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। সহকারী পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন ও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বাবুল আকতার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। রবিবার বিকেল পর্যন্ত কোনও অভিযোগ পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন ও অভিযোগ প্রাপ্তি সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'



মন্তব্য