kalerkantho


ঈশ্বরদীতে প্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় লম্পট ফুপা আটক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ এপ্রিল, ২০১৮ ১৮:০৭



ঈশ্বরদীতে প্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় লম্পট ফুপা আটক

পাবনার ঈশ্বরদীতে লম্পট ফুপা কর্তৃক এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী(১৩) ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত জালাল হোসেন (৪০) কে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রাতে ওই প্রতিবন্ধী কিশোরীর স্বজনরা তাকে গনপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। আজ বুধবার দুপুর পৌনে ২টায় আদালতের মাধ্যমে তাকে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আটককৃত জালাল উপজেলার ছলিমপুর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর মাথালপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

এ ব্যাপারে পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক  জানান, প্রতিবন্ধী সালমা ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে উপজেলার ছলিমপুর ইউনিয়নে ফুপুর বাড়িতে বেড়াত গেলে লম্পট ফুপা জালাল ভয়ভীতি দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে বাড়ির নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। ভয়ভীতি দেখিয়ে মেরে ফেলার হুমকি দিলে সে এ কথা কাউকে আর বলে না।  সালমা প্রতিবন্ধী হওয়ার কারণে সঠিক তারিখ বলতে পারছে না। সালমার মা সুমনা বেগম (৩২) দৃষ্টি প্রতিবন্ধী। বাড়ির স্বজনরা সালমার শারীরিক পরিবর্তন দেখে তার কাছে জানতে চাইলে সে হাতের ইশারাতে কথাগুলো স্বীকার করে। তারপর পাবনা একতা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে রিপোর্টে জানা যায়, প্রতিবন্ধী ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। 

তিনি আরো জানান, প্রতিবন্ধী সালমার দেওয়া তথ্য মতে গতকাল মঙ্গলবার লম্পট ফুপার বাড়িতে গিয়ে তার কাছে জানতে চানতে চাইলে সে পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় স্থানীয় এলাকাবাসী ও সালমার স্বজনরা তাকে গনপিটুনি দিয়ে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থল হতে লম্পট জালালকে থানায় নিয়ে আসে। আজ সকালে ভিক্টিমকে প্রাথমিক পেগনেনসি টেষ্টের মাধ্যমে জানা গেছে, সে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা। বাচ্চা ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে সত্যতা নির্ণয় করা সম্ভব।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) রুহুল আমিন জানান, প্রতিবন্ধী কিশোরীর বাবা আব্দুস সামাদ বাদী হয়ে ঈশ্বরদী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। আজ দুপুরে আটককৃত আসামিকে আদালতের মাধ্যমে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।



মন্তব্য