kalerkantho


সাতক্ষীরায় ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে নারীকে হত্যা, যুবকের মৃত্যুদণ্ড

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

২৪ এপ্রিল, ২০১৮ ১৯:২৫



সাতক্ষীরায় ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে নারীকে হত্যা, যুবকের মৃত্যুদণ্ড

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে স্বামী পরিত্যাক্ত নারীকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে এক যুবককে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচারক অরুণাথ চক্রবর্তী এ আদেশ দেন। 

দণ্ডিত আসামির নাম রফিকুল ইসলাম শিপন ওরফে আলমগীর। তিনি সদর উপজেলার ধুলিহর ব্রক্ষ্মরাজপুর এলাকার অজেদ আলীর ছেলে। 

মামলার বিবরণে জানা যায়, আসামী শিপন ওরফে আলমগীর ২০০৯ সালের প্রথমদিকে কালিগঞ্জ উপজেলার মৌতলা গ্রামের হেকমত শেখকে পালিত পিতা বানিয়ে সেখানে বসবাস শুরু করেন এবং ওই এলাকায় গাছ ক্রয়-বিক্রয়ের ব্যবসা শুরু করেন। এক পর্যায়ে ১৩ সেপ্টেম্বর আসামী শিপন একই উপজেলার মুড়াগাছা এলাকায় গাছ ক্রয় করার সুবাদে আকবর আলী মোড়লের বাড়িতে রাত্রিযাপন করেন। গভীর রাতে প্রকৃতির ডাকে আকবর আলীর মেয়ে সালমা খাতুন খুকু বাইরে আসলে আসামি শিপন তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এক পর্যায়ে ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে শিপন তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। পরদিন সালমার বাবা আকবর আলী মোড়ল বাদী হয়ে কালিগঞ্জ থানায় শিপন ওরফে আলমগীরকে প্রধান আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ এ মামলায় আসামি শিপনকে গ্রেপ্তার করেন এবং তার কাছ থেকে নিহতের ব্যবহৃত মোবাইলটিও উদ্ধার করেন। পরে শিপন জবানবন্দিতে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার কথা স্বীকার করেন। এ মামলায় আসামি দীর্ঘদিন উচ্চ আদালতের জামিনে ছিলেন। 

এই মামলার নথি ও ১৭ জন সাক্ষীর জবানবন্দি দীর্ঘ পর্যালোচনা শেষে আজ মঙ্গলবার দুপুরে বিচারক মামলার প্রধান আসামি রফিকুল ইসলাম শিপন ওরফে আলমগীরকে মৃত্যুদণ্ড দেন। তবে পলাতক থাকায় রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন না তিনি। 

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি সাতক্ষীরা জজকোর্টের অতিরিক্ত পিপি তপন কুমার দাশ সাজার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।



মন্তব্য