kalerkantho


জয়পুরহাটে চিকিত্সকের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ

জয়পুরহাট প্রতিনিধি   

২৩ এপ্রিল, ২০১৮ ০৪:৩৮



জয়পুরহাটে চিকিত্সকের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ

চিকিত্সকের অবহেলা ও দায়িত্বহীনতার কারণে জয়পুরহাট শহরের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে সন্তান জন্মের দুই ঘণ্টা পর প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ করেছে তাঁর স্বজনরা।

গত শনিবার সন্ধ্যায় জয়পুরহাট শহরের কমল মেমোরিয়াল ক্লিনিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রসূতির স্বজনদের অভিযোগ, অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার দুই মাস পর থেকে ডা. পারভিন আক্তারের তত্ত্বাবধানে নিয়মিত চিকিত্সাধীন ছিলেন জেলার ক্ষেতলাল উপজেলার মামুদপুর ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের সাইদুর রহমানের মেয়ে মৌসুমী আক্তার (২২)। তাঁর স্বামীর বাড়ি পাশের আক্কেলপুর উপজেলার সুসৃষ্টি গ্রামে।

গত শুক্রবার ভর্তির পর শনিবার বেলা আড়াইটার দিকে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে মৌসুমীর কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। কিছুক্ষণ পর মৌসুমীর মৃত্যু হলে ক্লিনিকের সবাই গা-ঢাকা দেয়।

মৌসুমীর মামা অ্যাডভোকেট আমিনুর রহমান বলেন, থাইরয়েডের রোগী মৌসুমীর অস্ত্রোপচারে ঝুঁকির আশঙ্কা থাকায় আমরা বগুড়ার শজিমেক হাসপাতালে নেওয়ার প্রস্তাব করি। কিন্তু জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের গাইনি বিশেষজ্ঞ ডা. পারভিন আক্তার সমস্যা হবে না বলে জানান। পরে ওই ক্লিনিকেই অস্ত্রোপচারে রাজি হই। কিন্তু ডা. পারভিনের অবহেলা, দায়িত্বহীনতা ও অর্থলিপ্সার কারণে ভাগ্নিকে অকালে হারাতে হলো।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে ডা. পারভিন আক্তার সাংবাদিকদের বলেন, প্রসূতিকে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হলেও স্বজনরা পরামর্শ শোনেননি। তাদের অনুরোধেই অস্ত্রোপচার করি। এদিকে নবজাতক এখনো ভালো আছে বলে জানা গেছে।

জয়পুরহাট সদর থানার ওসি (তদন্ত) মমিনুল হক জানান, স্বজনরা প্রসূতির মৃত্যুর জন্য ডাক্তারের অবহেলাকে দায়ী করলেও থানায় অভিযোগ করেনি।

 সিভিল সার্জন ডা. হাবিবুল আহসান তালুকদার বলেন, প্রসূতির মৃত্যুর কথা শুনেছি। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দোষ প্রমাণিত হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



মন্তব্য