kalerkantho


বাকৃবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে নৈতিক স্খলনের অভিযোগ

বাকৃবি প্রতিনিধি   

২২ মার্চ, ২০১৮ ০০:৩৫



বাকৃবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে নৈতিক স্খলনের অভিযোগ

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে নৈতিক স্খলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশ্ববর্তী শেষমোড় সংলগ্ন এলাকাবাসী এ অভিযোগ করেছেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি অনুষদের এনাটমি ও হিস্টোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল আউয়াল।

জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে ড. আব্দুল আউয়াল শেষমোড় সংলগ্ন এক বিবাহিত নারীর কক্ষে যান। তখন স্থানীয় কিছু এলাকাবাসী সেটি টের পেয়ে গেলে ওই নারীর কক্ষে খোঁজ নিতে যায় ও ভিতরে কেউ আছে কিনা জানতে চান।

তখন ওই নারী অস্বীকার করে বলেন, ভিতরে কেউ নেই এবং পুনরায় ভিতর থেকে কক্ষের দরজা আটকে দেয়। এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে ওই নারীর কক্ষ বাহির থেকে তালা দেয় এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে খবর দেয়। খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর কার্যালয়ের কর্মকতা ও শিক্ষকবৃন্দ ঘটনাস্থলে যান। পরে তাঁদের সামনেই তালা খুলে ওই শিক্ষককে ঘরের ভিতরেই পাওয়া যায় বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী। ওই নারী একজন হোমিওপ্যাথিক ডাক্তার এবং অনেকদিন ধরেই তারা এমন মেলামেশা দেখছেন বলে অভিযোগ করেন তারা। চাকরিসূত্রে ওই নারীর স্বামী ঢাকায় থাকার কারণে তিনি বাড়িতে একাই থাকেন বলেও জানান এলাকাবাসী।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আতিকুর রহমান খোকন বলেন, মঙ্গলবার আমি ছুটিতে ছিলাম। এ কারণে ঘটনাস্থলে যায় সহকারী প্রক্টর তানভীর রহমান ও কর্মকর্তারা। তাঁদের সহায়তায় ওই শিক্ষককে উদ্ধার করে তার নিজ বাসায় পাঠানো হয়। চিকিৎসার কারণে তিনি ওই নারীর বাসায় গিয়েছিলেন বলে শুনেছি। ড. মো. আব্দুল আউয়াল মিয়ার সাথে মুঠোফোনে বেশ কয়েকবার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।



মন্তব্য